রবিবার, ২২ জানু ২০১৭ ০৭:০১ ঘণ্টা

সাজা শেষে ১৭ বাংলাদেশীকে ফেরত দিয়েছে ভারত

Share Button

সাজা শেষে ১৭ বাংলাদেশীকে ফেরত দিয়েছে ভারত

সিলেট রিপোর্ট: বিভিন্ন মেয়াদে সাজা শেষে ১৭ বাংলাদেশীকে ফেরত দিয়েছে ভারতীয় বিএসএফ। রোববার দুপুরে জকিগঞ্জ ইমিগ্রেশন চেকপোষ্টে তাদের হস্তান্তর করা হয়। এদের মধ্যে তিন জনই মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেছেন।
সাজার মেয়াদ শেষে দীর্ঘদিন কারাভোগ ও দেশে ফিরতে অনিশ্চয়তা এসব কারণে এরা মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেছেন বলে জানান ফেরত আসা সামছ উদ্দিন, রফিক উদ্দিন ও রাহুল দাস। ফেরত আসাদের মধ্যে অনেকের আত্মীয়স্বজন না আসায় বিপাকে পড়েছেন। মানসিক ভারসাম্যহীনরা গ্রামের নামটিও বলতে পারছেনা। ফলে ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষ এদের নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছে।
ফেরত আসা শাহজাহান জানান, ভারতের আদালত তাকে দুই মাসের সাজা দিয়ে করিমগঞ্জের সেন্ট্রাল জেলে প্রেরণ করে। আদালতের নির্ধরিত সময়ে সাজা শেষেও অতিরিক্ত দুই বছর বন্দী থাকতে হয়েছে। একই অবস্থা অন্যদেরও। প্রত্যেকেই সাজার মেয়াদ শেষে অতিরিক্ত দুই থেকে তিন বছর কারাভোগ করতে হয়েছে। ভারত ফেরতরা জানান, ভারতের শিলচর কেন্দ্রীয় কারাগারে কমপক্ষে ৫০ জন বাংলাদেশী বন্দী রয়েছেন।
ফেরত আসা বাংলাদেশীরা হচ্ছেন, জকিগঞ্জের বড়পাথর গ্রামের হাসন আলীর ছেলে সামছ উদ্দিন (৩৪), বড়লেখা উপজেলার ইনাইনগর গ্রামের মতছিম আলীর ছেলে রফিক উদ্দিন (৫০), জুবারতল গ্রামের ফয়জুর রহমানের ছেলে আব্দুল জব্বার পাখি (৩৫), ডেমাই গ্রামের ইছহাক আলীর ছেলে আব্দুর রহিম (৩৮), বাচাকেছরীগুল গ্রামের আব্দুন নুরের ছেলে রিয়াজ উদ্দিন (৪৪) বানিয়াচং উপজেলার সুনাড়– গ্রামের রবিন্দ্র দাসের ছেলে রাহুল দাস (৩০), বেগম গঞ্জের আকতারামপুর গ্রামের কালা মিয়ার ছেলে করিম উসমান (৬০), ব্রাহ্মনবাড়ীয়ার বিজয়নগর উপজেলার কাঞ্চনপুর গ্রামের নজির উদ্দিনের ছেলে ইসহাক আলী (৩৫), চাঁদপুর জেলার মতলব উপজেলার সারদাইকাউ গ্রামের সালু মোল্লার ছেলে বাবুল মোল্লা (৪০), নরসিংদির রায়পুর উপজেলার পলাশতুলি গ্রামের ইদ্রিস মিয়ার ছেলে চাঁন মিয়া (৩৫), কুমিল্লার বাঞ্চারামপুর উপজেলার কালিকাপুর গ্রামের আখলিছ মিয়ার ছেলে আনিছুর রহমান (৪০), ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার পাঁচগন গ্রামের শুক্কুর আলীর ছেলে শাহজাহান (৩৮), সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলার আনন্দপুর গ্রামের জিতেন্দ্র দাসের মেয়ে মৌ দাশ (২০), হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার তেলিয়া পাড়া গ্রামের দেওনারায়ন গোলার স্ত্রী প্রভাবতী গোয়ালা (৭০), বানিয়চাং উপজেলার জাতিকামাপাড়ার সুতাজ উল্লাহর ছেলে তাপুর মিয়া (৪০), গোপালগঞ্জের গোয়াইদারী গ্রামের সামছুল হোসাইন কাজীর ছেলে সোহাগ হোসেন কাজী (৩০), মৌলভীবাজারের বুধাইহাল গ্রামের আসাদ আলীর ছেলে আব্দুল করিম (৩৭)।
জকিগঞ্জ ইমিগ্রেশন চেকপোষ্ট ইনচার্জ মোশারফ হোসেন জানান, অনুপ্রবেশের দায়ে ভারতের কারাগারে বন্দী ১৭ বাংলাদেশীকে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ হস্তান্তর করেছে। অনেকের কেউ গ্রহণ করতে না আসায় তাদের স্বজনদের খবর দেয়া হয়েছে।

এই সংবাদটি 1,088 বার পড়া হয়েছে

WP2FB Auto Publish Powered By : XYZScripts.com