চলমান সংকট সমাধানের ওপর নির্ভর করছে আলেমদের ভবিষ্যৎ

প্রকাশিত: ৯:৫০ অপরাহ্ণ, জুলাই ৪, ২০২০


মুফতি এনায়েতুল্লাহঃ
স্বভাবতই আমরা যখন মানবজাতির কল্যাণের কথা বলি, তখন মানুষের ঐক্যের কথা বলি। আমরা যখন মানবিকতার কথা বলি, তখন মানবীয় গুণাবলীর কথা বেশ জোরেশোরে উচ্চারণ করি। তবে বর্তমান সভ্যতার ক্রান্তিলগ্নে এসে আমরা দারুণভাবে উপলব্ধি করছি, ওই দু’টি বিষয়ে আমরা চরম সংকটে রয়েছি। এটাই বর্তমান আলেম-উলামার সংকট, আমাদের সমাজের সংকট এমনকি সভ্যতার সংকট।

আলেম-উলামা থেকে বিভিন্ন পেশাজীবীদের মধ্যে, এক দেশের সঙ্গে আরেক দেশের, এক গোষ্ঠীর সঙ্গে আরেক গোষ্ঠীর মধ্যে এখন না আছে ঐক্য না আছে মানবিক গুণাবলী। এমন মান নিয়ে হয়তো প্রাণী হওয়া যায় কিন্তু মানুষ হওয়া যায় কী?

পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধ, সম্মান স্নেহ, দয়া-মায়া ও ন্যায়-নীতিকে মানুষ এখন গুরুত্ব দিতে চায় না। ক্ষমতার দণ্ড, ভোগ-বিলাস ও সম্পদের মোহে মানুষ এখন যে কোনো অন্যায় ও জুলুম করতে কুণ্ঠিত নয়। পরস্পরে বিদ্যমান ঠুনকো বিদ্বেষ উসকে দিয়ে নেতারা এখন রাজনীতি করতে চান। চাতুর্য ও প্রহসনে মত্ত রাজনীতিবিদদের কথা ও কাজে কোনো মিল খুঁজে পাওয়া যায় না। দাম্ভিক নেতারা একে অপরকে চাপে রাখার জন্য নানা কৌশলের প্রতিযোগিতায় মেতে উঠেছেন। দুর্বল শক্তি বা কণ্ঠগুলোকে ফাঁদে ফেলে স্বার্থ হাসিল করতে তারা কার্পণ্য করছেন না।

এমন অজাচার, অনাচার ও অত্যাচারে আমাদের নেতৃত্বস্থানীয়রা লিপ্ত হন কেমন করে? হয়তো তারা নিজেকে ভুলে গেছেন। নিজকে ভুলতে গিয়ে নিশ্চয় নিজের স্রষ্টাকেও ভুলে গেছেন। স্রষ্টাকে বিশ্বাস করলে তো তার কাছে কর্মের জবাবদিহিতার বিষয়টিকেও বিশ্বাস করতে হয়। অন্তরে এমন বিশ্বাস থাকলে মানুষ কেমন করে এত অন্যায়-অবিচার, জুলুম-নির্যাতন, প্রহসন ও চাতুর্যের আশ্রয় নেয়?

আসলে বিশ্বাসে সংকটের কারণেই আমরা দিনে দিনে এতটা অমানুষ হয়ে উঠেছি। এই সংকটের সমাধানের ওপরই নির্ভর করছে আলেমদের ভবিষ্যৎ।

আলমেদের ভবিষ্যৎ নিয়ে আলেমদের অবশ্যই ভাবতে হবে, তবে বর্তমান সময়ে আমরা কোথায় দাঁড়িয়ে আছি এবং নেতারা কী ভাবছেন তার খোঁজখবর নেয়াটাও কম গুরুত্বপূর্ণ নয়। বাংলাদেশের বেশিরভাগ আলেম ইসলামি অঙ্গনে একক আধিপত্য প্রতিষ্ঠার চেষ্টার বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন। কতিপয় নেতার এমন আধিপত্যকামী মনোভাবের বিরুদ্ধে জেগে ওঠা অবশ্যই সাধুবাদযোগ্য কাজ।

বস্তুত চরম স্বার্থপরতা ও কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠার যে রাজনীতি চলছে তা কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না, গুটিকয়েক নেতার ভূমিকাকে সমর্থন করা যায় না। যদিও তারাও মুখে ঐক্যের কথা বলছে, তবে এটা স্পষ্ট মুখে ঐক্য ও শান্তির কথা বললেও তারা চলছে একা এবং সংকীর্ণ স্বার্থের পথের পথিক। জনসমর্থন নেই তাদের সঙ্গে। অনেকটা ঢাল-তলোয়ারহীন সিপাই।

আর যাই হোক, তাদের দিয়ে ইসলাম-মুসলমান ও উম্মাহর কোনো ফায়দা হবে না- এটা নিশ্চিত। এই সরল কথাটা মাথায় থাকলেই মঙ্গল।

এই সংবাদটি 11 বার পঠিত হয়েছে

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com