জামালগঞ্জে জমিয়তী ঈদ আনন্দ ভ্রমণে ১২৩ নেতা-কর্মী

প্রকাশিত: ৭:৫৫ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২৬, ২০২১

জামালগঞ্জে জমিয়তী ঈদ আনন্দ ভ্রমণে ১২৩ নেতা-কর্মী


সিলেট রিপোর্ট: জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ সুনামগঞ্জ জেলার জামালগঞ্জের যুব ও ছাত্র জমিয়ত কর্মীদের একটি কাফেলা ব্যতিক্রমী আনন্দ ভ্রমন করেছেন। ২৪ জুলাই সাজ সাজ রব ছিলো জামালগঞ্জে। এছাড়া ফেসবুক জুড়েও বেশ আলোড়ন সৃষ্টিকরতে সক্ষম হয় এই অনুষ্ঠান।
যেসব কর্মসূচী দিয়ে সাজানো হয়েছিল-
★ক্বেরাআত প্রতিযোগিতা
★হামদ-নাত প্রতিযোগিতা
★পাঞ্জা প্রতিযোগিতা
★ফুটবল খেলা
★হাড়িভাঙ্গা খেলা
★যৌথ ইসলামী সংগীত
★উপস্থিত তেজস্বী বক্তব্য
★সম্মিলিত দলীয় মিছিল
★যুব জমিয়ত ও ছাত্র জমিয়ত উপজেলা শাখার মিটিং
★যুব জমিয়ত, ছাত্র জমিয়ত ইউনিয়ন শাখার নিয়মিত মাসিক মিটিং ও এয়ানত সংগ্রহ
★যুব জমিয়ত ভীমখালী ইউপি শাখার কমিটি গঠন
★যুব জমিয়ত জামালগঞ্জ সদর ও জামালগঞ্জ উত্তর ইউপি শাখার নবনির্বাচিত কমিটির শপথ গ্রহণ।

এব্যাপারে যুব নেতা মাওলানা আলতাফুর রহমান তার ফেসবুকে একটি ট্যাটাস দেন, তা নিম্নরূপ:
জামালগঞ্জের জমিয়ত কর্মীরা আমার প্রাণ
.
গতকাল শনিবার জামালগঞ্জ উপজেলার শুধুমাত্র জমিয়ত প্রেমীদের নিয়ে আয়োজন করেছিলাম ঈদ আনন্দ ভ্রমণ,১২৩জনের কাফেলা নিয়ে রওয়ানা হয়েছিলাম নৌ পথে টাঙ্গুয়ার হাওর ও সুখাইর রাজবাড়ীতে,নৌকায় যাত্রাপথে আয়োজন ছিল ক্বেরাআত, হামদ-নাত ও পাঞ্জা লড়াই প্রতিযোগীতা,যাত্রাপথে নৌকায় অনুষ্ঠিত হয় যুব ও ছাত্র জমিয়তের উপজেলা ও ইউনিয়ন কমিটি গুলোর নিয়মিত মাসিক বৈঠক, জামালগঞ্জ সদর ওউত্তর ইউপি যুব জমিয়তের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান। টাঙ্গুয়ার হাওরে গিয়ে প্রাকৃতিক সুন্দর্য দেখে ফিরে আসি সুখাইর রাজবাড়ীতে,মাঠে এসে বিবাহিত বনাম অবিবাহিতদের মধ্যে দায়েমী ফরয ঠিক রেখে চলেছিল ৩০মিনিটের ফুটবল খেলা,খেলায় নিরপক্ষ হিসেবে লেফারির দায়িত্বে ছিলাম আমি নিজে,অবশেষে বরাবরের মত অবিবাহিতরাই বিজয়ী হয়।তারপর শুরু হয় হাড়িভাঙ্গা খেলা,খেলায় অবিবাহিতরাই হাড়ি ভাঙ্গতে সক্ষম হয়,একজন বিবাহিত হাড়ি ভাঙ্গেন তবে তিনি ঐ এলাকার মুরুব্বী,অতপর গোসল সেরে নৌকায় এসে শুরু হয় আমাদের সবার প্রিয় সংগীত শিল্পী প্রিয় ছোটভাই Arif Robbany র যৌথ কন্ঠে মনোমুগ্ধকর ইসলামী সংগীত “আমিত চাইনা বাড়ী।সবশেষে মিছিলের মাধ্যমে বিজয়ীদের হাতে তুলে দেওয়া হয় আমাদের সবার প্রিয় ফেনারবাক ইউনিয়নের ইউপি সচিব Ajit Kumar Roy দাদার পক্ষ থেকে বিজয়ী ও বিচারকদের জন্য দেয়া সাবান পূরষ্কার,অবশ্য আমি নিরপক্ষ লেফারী ছিলাম বলে নিজেও একটি সাবান পূরষ্কার নিয়েছি।

★আমাদের এই বিশাল প্রোগ্রাম আয়োজন দেখে খুশী হয়ে স্পন্সর করেছেন বাবায়ে জমিয়ত আল্লামা আশরাফ আলী বিশ্বনাথী রহ এর সুযোগ্য সাহেবযাদা শ্রদ্ধেয় হাফিজ হোসাইন আহমদ দাঃবাঃ।
★ আরোও স্পন্সর করেন নাম উলামায়েকেরাম ভক্ত প্রকাশে অনিচ্ছুক আমার অত্যন্ত প্রিয় একজন ভাতিজা।
★আমাদের আয়োজন দেখে খুশী হয়ে সবার জন্য চানাচুর হাদিয়া পাঠান সিলেট রিপোর্ট সম্পাদক যুবনেতা Ruhul Amin Nagry ভাই।
★যারা আমাদের আয়োজনে সহযোগিতা করেছেন তাদের সবার জন্য মোনাজাত পরিচালনা করেন যুব জমিয়ত জামালগঞ্জ উপজেলা সভাপতি মাওলানা নজরুল ইসলাম ভাই।
★প্রোগ্রাম চলাকালীন সকাল থেকে নিয়ে রাত পর্যন্ত সময়ের ভিতরে হয়ত অনেকের সাথে রাগ করে কথা বলেছি দয়া করে আল্লাহর ওয়াস্তে তোমাদের ভাই হিসেবে ক্ষমা করে দিও।কেননা বিশাল আয়োজনে মানুষ হিসেবে ইচ্ছায়-অনিচ্ছায় ভূল করে থাকতে পারি।
★২০লিটার ঠান্ডা ও ১২৫প্যাকেট চানাচুর লওয়ার জন্য এক বাজারে নেমেছিলাম,দুঃখজনক হল এই ২০লিটার ঠান্ডা ও ১২৫প্যাকেট চানাচুর সংগ্রহ করতে বৃষ্টিতে ভিজে বাজারের ৪/৫টি দোকান ঘুরতে হয়েছে।মনে থাকবে বাজারটির কথা।
বিঃদ্রঃ প্রোগ্রাম সফল করতে যারা দুই দিন পূর্ব থেকে আমার সাথে অক্লান্ত পরিশ্রম করেছে বিশেষ করে ছোটভাই মাছরুফ আহমদ,আল আমীন জহুর, আনোয়ার ভাই,ভাতিজা বায়েজিদ আহমদ মারুফ ,H M Hasan,ছোটভাই Md Oliur Rahman,রুহুল আমিন বাদশা,নাতি Sadin Khan, ভাগ্না মোহাম্মদ আলী উজ্জ্বল, ছোটভাই এহসানুল হক্ব শয়বাল প্রমুখ।
আল্লাহ যেন আমাদেরকে এভাবে ভাই ভাই হয়ে একত্রে থাকার তৌফিক দান করেন।

এই সংবাদটি 175 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

[latest_post][single_page_category_post]

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com