মঙ্গলবার, ০৯ অক্টো ২০১৮ ০৪:১০ ঘণ্টা

এ মাসেই গুজব শনাক্তকরণ সেল

Share Button

এ মাসেই গুজব শনাক্তকরণ সেল

ফেসবুক, ইউটিউবসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারিত গুজব শনাক্ত করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম। বলেছেন, এই বিষয়টি পর্যবেক্ষণে নয় সদস্য বিশিষ্ট গুজব শনাক্তকরণ সেল গঠন করা হবে।

বুধবার দুপুরে সচিবালয়ে তথ্য মন্তণালয়ের সভাকক্ষে গুজব সনাক্তকরণ সেল (Rumor Monitoring Cell) এর কার্যক্রম নির্ধারণ ও সহযোগিতা কার্যকর বিষয়ক আন্তঃমন্তণালয়ের সভার পূর্বে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম।

তারানা হালিম বলেন, ‘সাম্প্রদায়িক সম্প্রতি নষ্ট করে, রাষ্ট্রকে বিব্রতকর অবস্থায় ফেলে দেয়, যে কোনও আন্দোলনকে অযৌক্তিক, অসত্য তথ্য দিয়ে বা গুজব দিয়ে উসকে দেয়া এই ধরনের যে গুজব আছে সেগুলো আমরা শনাক্ত করবো। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ বিভাগগুলো আমাদের সহায়তা করবে।’

‘আইনের আশ্রয় নেয়া আমাদের কাজ নয়, মামলা করাও আমাদের কাজ নয়। আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে এমন পরামর্শ দেয়াও আমাদের কাজ নয়। এই সেলের কাজ হবে গুজব শনাক্ত করা, এখানে যাতে কেউ বিভ্রান্ত না হয় সেটা বলা।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘গোয়েন্দা সংস্থারা আমাদের জানাবেন যে এই এই গুজব অনলাইনে ঘুরে বেড়াচ্ছে। আমরা শুধু গুজবটা শনাক্ত করতে চাই, আর সেটা জনগণকে দ্রুত অবহিত করতে চাই।’

‘পরবর্তীতে গুজবগুলোর তালিকা তথ্য মন্ত্রণালয় থেকে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে কনটেন ব্লক বা ফিল্টার করার জন্য বিটিআরসির কাছে পাঠিয়ে দেয়া হবে।’

‘গুরুত্ব বিবেচনায় আমরা এটি দৈনিক বা সাপ্তাহিকভাবে করতে পারি। এ জন্য তথ্য মন্ত্রণালয়সহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, গোয়েন্দা সংস্থাসহ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও সংস্থার প্রতিনিধিদের এক সঙ্গে কাজ করতে হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘ইতোমধ্যে তথ্য অধিদফতর সিনিয়র তথ্য অফিসারকে প্রধান করে একটি ৯ সদস্যের কমিটি গঠন করেছে। কমিটির অধীনে কাজ করবে আরও কিছু কর্মকর্তা। সেলটিকে কার্যকর করার জন্য প্রথমে নির্ধারণ করা হবে এ মুহূর্তে অনলাইনে কোন গুজবগুলো ঘুরে বেড়াচ্ছে সেটা নির্ধারণ করা। সেগুলো আসলে গুজব কিনা সেটা নির্ধারণে আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর লোকজন সংশ্লিষ্ট অঞ্চলে গিয়ে নিশ্চিত হবে। গুজব না হলে আমাদের কিছু করার থাকবে না। বার গুজব হলেই জানাবো যে এটি গুজব।’

সেল কি আজ থেকেই কাজ শুরু করেছে কিনা প্রশ্নে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘কাজ আসলে ইনফর্মালি শুরু হয়েছে। কিন্তু আমরা যেভাবে চাচ্ছি সেভাবে করতে হলে আরেকটু মনোযোগ দিয়ে এগোতে হবে। আনুষ্ঠানিকভাবে আমরা যখন প্রথম জানাতে পারবো যে এটি গুজব, সেদিন থেকেই আমরা মনে করবো সফলতার পথে পা দিয়েছি এবং কার্যকর একটা ভূমিকা রাখতে পেরেছি। তার আগ পর্যন্ত আমি বলতে চাই না আমরা কাজ শুরু করেছি।’

আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে গুজব ছড়াবে বলে আশংকা করা হচ্ছে কিনা আর নির্বাচনকে কেন্দ্র করেই এই সেল করা হয়েছে কিনা- এমন প্রশ্নের জবাবে তারানা বলেন, ‘না, সে জন্য এটা আমরা করছি না। গুজবের বিরুদ্ধে কেউ যে কাজ করছে না, তা কিন্তু নয়। আমাদের আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর বিভিন্ন ইউনিট আছে তারা প্রত্যক্ষভাবে এগুলো নিয়ে কাজ করছে। আমাদের গোয়েন্দা সংস্থা প্রতিনিয়ত কাজ করছে। এটুআই তাদের মত করে কাজ করছে। প্রত্যেকেই কিন্তু নিজেদের মত কাজ করছে।’

‘আমার কাছে মনে হয়েছে, তথ্য মন্ত্রণালয় এখানে সম্পৃক্ত হওয়া প্রয়োজন। তথ্য মন্ত্রণালয় হবে তথ্যের সৌর্স, আমরা তথ্য বিতরণও করবো। তাহলে কেন এখানে তথ্য মন্ত্রণালয়ের ভূমিকা থাকবে না? এই ভাবনা থেকেই এ উদ্যোগটা নেয়া।’

এই সংবাদটি 1,003 বার পড়া হয়েছে

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com