হবিগঞ্জে পুলিশের নির্যাতনে আসামি মৃত্যুর অভিযোগ

প্রকাশিত: ৫:০৬ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১, ২০১৯

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি :
হবিগঞ্জ সদর থানায় চেক ডিজঅনার মামলার আসামি ফারুক মিয়ার (৪৫) পুলিশি নির্যাতনে মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। তবে বিষয়টি অস্বীকার করছে পুলিশ। সোমবার (৩০ সেপ্টেম্বর) সকাল ৯টার দিকে সদর থানা থেকে আসামিকে সদর আধুনিক হাসপাতালে নিয়ে গেলে ডাঃ মিঠুন চক্রবর্তী মৃত ঘোষণা করেন।

নিহত আসামি ফারুক মিয়া শহরের মোহনপুর এলাকার সঞ্জব আলীর ছেলে। সে ১৫ হাজার টাকার একটি চেক ডিজঅনার মামলার আসামি ছিল। এর আগে রাত ৩টার দিকে সদর থানার একদল পুলিশ আসামিকে তার বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যায়।

নিহতের ছোট ভাই নুরুজ্জামানা অভিযোগ করেন, রাত ৩টার দিকে সদর থানার একদল পুলিশ তাদের বাড়িতে গিয়ে তাকে গ্রেফতার করে। পরে সেখান থেকেই মারতে মারতে আসামিকে থানায় নিয়ে যায়। এরপর থানায় এনেও রাতভর নির্যাতন করে। এক পর্যায়ে আসামি জ্ঞান হারিয়ে ফেললে সকালে পুলিশ তাকে হাসপাতালে নিয়ে যায়। এ সময় সদর হাসপাতালের চিকিৎসক মিঠুন চক্রবর্তী আসামিকে মৃত ঘোষণা করেন।

হবিগঞ্জ আধুনিক জেলা সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের দায়িত্বপালনকারী চিকিৎসক ডা. মিঠুন রায় জানান, পুলিশ অসুস্থ অবস্থায় ফারুক মিয়াকে হাসপাতালে নিয়ে এলেই তার মৃত্যু হয়। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে হার্ট অ্যাটাকেই তার মৃত্যু হয়েছে। তবে ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।

হবিগঞ্জ সদর থানার ওসি মাসুক আলী জানান, মৃত্যুবরণকারী ফারুক মিয়ার বিরুদ্ধে একাধিক মামলায় সাজা পরোয়ানা রয়েছে। এছাড়া তিনি একজন হার্টের রোগী। রাতে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করলে তিনি হার্ট এ্যাটাক করেন। পরে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ উল্ল্যা বলেন, আসামিকে রাতে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় সে অনেকটা আতঙ্কিত হয়ে পরে। যার ফলে সে স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে মারা যেতে পারে। তবে যদি পুলিশ দায়ী তাকে তাহলে ওই পুলিশের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এই সংবাদটি 1 বার পঠিত হয়েছে

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com