সিলেটে মারধরে ব্যাংক কর্মকর্তার মৃত্যু : সেই চালকের অটোরিকশা জব্দ

প্রকাশিত: ৯:১৭ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২১

সিলেটে মারধরে ব্যাংক কর্মকর্তার মৃত্যু : সেই চালকের অটোরিকশা জব্দ

সিলেট রিপোর্ট :
সিলেট নগরীর বন্দরবাজারে ভাড়া নিয়ে বাকবিতন্ডার এক পর্যায়ে সিএনজি অটোরিকশা চালকদের মারধরে ব্যাংক কর্মকর্তা মওদুদ আহমদের (৩৫) নির্মম মৃত্যু ঘটেছে। ঘটনার ৩ দিন পর ‘খুনি’র সিএনজি অটোরিকশা (সিলেট থ-১২-৪২৭০) গাড়িটি জব্দ করেছে পুলিশ।

গতকাল সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় সিলেট মহানগরীর জালালাবাদ থানাধীন টুকেরবাজার এলাকা থেকে অটোরিকশাটি উদ্ধার করে কোতোয়ালি মডেল থানাপুলিশ।

মঙ্গলবার বিকেলে জানিয়েছেন কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এস এম আবু ফরহাদ। এই গাড়ির নাম্বার মামলা এজাহারে উল্লেখ আছে বলে তিনি জানান।

এ ঘটনায় জড়িত কেউ এখনও গ্রেফতার হননি। তবে খুব শীঘ্রই গ্রেফতার করা হব বলেন ওসি এস এম আবু ফরহাদ।

গত শনিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) রাত ৮টার দিকে বন্দরবাজারের কালেক্টরেট জামে মসজিদের সামনে সিএনজি অটোরিকশা চালকদের বেধড়ক মারপিটে নির্মমভাবে প্রাণ হারান মওদুদ আহমেদ (৩৫) নামের এক ব্যাংক কর্মকর্তা। নিহত মওদুদ আহমেদ (৩৫) ময়মনসিংহ জেলার গৌরীপুর উপজেলার টেংগুরিপাড়া গ্রামের মো. আব্দুল ওয়াহেদের ছেলে। তিনি সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার অগ্রণী ব্যাংক, হরিপুর গ্যাস ফিল্ড শাখার অফিসার (ক্যাশ) হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তিনি নগরীর রাজারগলিতে একটি ভাড়া বাসায় বসবাস করতেন।

জানা গেছে, শনিবার বিকেলে জৈন্তাপুরের হরিপুর থেকে একটি সিএনজি অটোরিকশায় (নম্বর- সিলেট-থ-১২-৪২৭১) নগরীর বন্দরবাজারে আসেন ব্যাংক কর্মকর্তা মওদুদ আহমেদ। সন্ধ্যা ৭টা ৪৫ মিনিটে কালেক্টরেট জামে মসজিদের সামনে আসার পর সিএনজি অটোরিকশা চালক নোমান হাছনুর (২৮) সাথে ভাড়া নিয়ে বাকবিতন্ডা হয় মওদুদের। এক পর্যায়ে নোমানসহ আরো কয়েকজন সিএনজি অটোরিকশা চালক মওদুদ আহমেদকে বেধড়ক মারধর করেন। এ সময় মওদুদ গুরুতর আহত হয়ে পড়লে তাকে উদ্ধার করে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল হাসপাতালে নিয়ে যান মুরাদ আহমেদ ও ইউনুছ আলী নামে দুই ব্যক্তি। রাত ৮টা ৪২ মিনিটে হাসপাতালেই মারা যান মওদুদ আহমেদ।

পরদিন রোববার ময়না তদন্ত শেষে মওদুদের মরদেহ ময়মনসিংহস্থ তাঁর নিজ বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয় এবং সেখানেই লাশ দাফন করা হয়।

এ ঘটনায় নিহত মওদুদের বড়ভাই আব্দুল ওয়াদুদ রোববার (২১ ফেব্রুয়ারি) বাদি হয়ে সিলেট সদর উপজেলার জালালাবাদ ইউনিয়নের টুকেরগাঁও পশ্চিমপাড়া গ্রামের আব্দুল হান্নানের ছেলে সিএনজি অটোরিকশা চালক নোমান হাছনুর নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাত কয়েকজনকে আসামি করে সিলেট কোতোয়ালি মডেল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

এদিকে, এ ঘটনায় রাস্তায় নেমেছেন তাঁর সহকর্মী ব্যাংকাররা। ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের শাস্তির দাবিতে মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে নগরীতে বিশাল মানবন্ধন কর্মসূচি পালন করেন সিলেটের ব্যাংকগুলোতে চাকরিত কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। এর আগে মঙ্গলবার দুপুরে দোষীদের দ্রুত গ্রেফতার ও শাস্তির দাবিতে স্বারকলিপি প্রদান করেন তারা

এই সংবাদটি 90 বার পঠিত হয়েছে

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com