বুধবার, ০৬ ডিসে ২০১৭ ১০:১২ ঘণ্টা

বাবরী মসজিদ যেখানে ছিল, সেখানেই পুন: নির্মাণ হওয়া উচিত: পশ্চিমবঙ্গ জমিয়ত

Share Button

বাবরী মসজিদ যেখানে ছিল, সেখানেই পুন: নির্মাণ হওয়া উচিত: পশ্চিমবঙ্গ জমিয়ত

ডেস্ক রিপোর্ট: ভারতের উত্তর প্রদেশের অযোধ্যায় বাবরী মসজিদ ও রাম জন্মভূমি ইস্যুতে আজ থেকে সুপ্রিম কোর্টে শুনানি শুরু হয়েছে। তার আগে ওই ইস্যুতে মসজিদ ও মন্দির নির্মাণের স্বপক্ষে পাল্টাপাল্টি বিবৃতি এসেছে। অন্যদিকে, বাবরী মসজিদ ধ্বংসের ২৫তম বার্ষিকীতে যেকোনো অপ্রিয় ঘটনা রুখে দিতে অযোধ্যায় উচ্চ সতর্কতা জারি করা হয়েছে। গতকাল (সোমবার) রাত থেকে পুলিশ বিভিন্ন যানবাহনে তল্লাশি চালানোসহ বিভিন্ন হোটেল, ধর্মশালা ও বাসায় তল্লাশি চালানো হচ্ছে। বিভিন্ন রেলওয়ে স্টেশনে সন্দেহজনকভাবে যারা ঘোরাঘুরি করছে তাদের ওপরে নজরদারি চালানো হচ্ছে। (মঙ্গলবার) বাবরী মসজিদ ইস্যুতে জমিয়তে উলামায়ে হিন্দ-এর পশ্চিমবঙ্গের সাধারণ সম্পাদক মুফতি আব্দুস সালাম রেডিও তেহরানকে বলেন, ‘মুসলিমদের স্ট্যান্ড বরাবরই খুব স্পষ্ট। ভারতীয় আইন, ভারতীয় সংবিধান মেনে ওখানে প্রমাণিত যে ওই স্থানটি ওয়াকফ বোর্ডের অধীন। আমরা আশা করব সেসব কাগজপত্র দেখে সুপ্রিম কোর্ট রায় দেবে।’তিনি বলেন, ‘আমরা কোনোদিনই মসজিদের দাবি থেকে পিছিয়ে আসতে পারি না। যেখানে মসজিদ ছিল, সেখানেই মসজিদ নির্মাণ হবে। যারা মসজিদকে শহীদ করেছে তাদের শাস্তি হওয়া উচিত। দেশের আইন যদি তাদের লাগাম না পায় তাহলে তা ভারতের দুর্বলতা ও দুর্দিনের বিষয়। এই দুর্দিন থেকে আমাদের বেরিয়ে আসতে হবে এবং সেজন্য মুসলিম সম্প্রদায় সর্বদা সচেষ্ট থাকবে।’
রাজ্য জমিয়তের সাধারণ সম্পাদক মুফতি আব্দুস সালাম বলেন, ‘ভারতের স্বাধীনতা, ভারতের সংবিধান, ভারতের সরকার গঠনের ক্ষেত্রে মুসলিমরা বরাবরই দায়িত্ব পালন করেছে। মুসলিমরা ব্যক্তি স্বাধীনতা, সমাজিক অধিকার ইত্যাদির পক্ষে রয়েছে এবং আমরা সেভাবেই দেশের স্বার্থে কাজ করে যাব।’তিনি আরও বলেন, ‘প্রকাশ্য দিবালোকে যারা ঐতিহাসিক মসজিদ গুঁড়িয়ে দিয়েছিল, আমরা দীর্ঘ ২৫ বছর পরেও তাদের আইনি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে শাস্তি দেখতে পেলাম না- এটা খুব দুর্ভাগ্যজনক বিষয়, খারাপ দিক।’
অন্যদিকে, অযোধ্যার রাম জন্মভূমি ট্রাস্টের সভাপতি মোহন্ত নৃত্যগোপাল দাস বলেছেন, যেখানে রামলালা আছে সেখানে খুব শিগগিরি অবশ্যই রাম মন্দির নির্মাণ হবে। মোদিজি (প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি) ও যোগিজীর (উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগি আদিত্যনাথ) আমলে যদি না হয় তাহলে আর কবে হবে? আদালতের রায় বিপক্ষে গেলে সংসদে আইন প্রণয়নের মাধ্যমে রাম মন্দির নির্মাণ নিয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলেও তিনি জানান।

পার্সটুডে

এই সংবাদটি 1,012 বার পড়া হয়েছে