শনিবার, ০৬ জানু ২০১৮ ১২:০১ ঘণ্টা

দেখাশোনায় বিরক্তি, মাকে বারান্দা থেকে নিচে ফেলে দিল অধ্যাপক ছেলে!

Share Button

দেখাশোনায় বিরক্তি, মাকে বারান্দা থেকে নিচে ফেলে দিল অধ্যাপক ছেলে!

 

ডেস্ক রিপোর্ট:

 

ছাত্রছাত্রীদের মানবিকতার পাঠ দেয় এই অধ্যাপক। কিন্তু বাস্তবের মাটিতে দাঁড়িয়ে সে নিজে যা করল তাকে নির্মম, মর্মান্তিক বললেও কম বলা হয়। নিজের মাকেই বারান্দা থেকে ফেলে খুন করার অভিযোগ উঠল রাজকোটের অধ্যাপকের বিরুদ্ধে। গোটা ঘটনা ধরা পড়েছে বিল্ডিংয়ের সিসিটিভি ক্যামেরায়।

ঘটনা গত বছর ২৯ সেপ্টম্বরের। বিষয়টি দুর্ঘটনা বলে ধামাচাপা পড়ে যায়। তবে পরে পুলিশের হাতে আসে চাঞ্চল্যকর ফুটেজ। যার জেরে মাকে খুনের অভিযোগে বৃহস্পতিবার ৩৬ বছরের সহ-অধ্যাপক সন্দীপ নথওয়ানিকে জালে তোলে। 

পুলিশ জানায়, দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ ছিলেন ৬৪ বছরের জয়শ্রীবেন। মস্তিষ্কে গুরুতর রোগ হয়েছিল তার। অসুস্থ মাকে দেখভাল করতে আর ভাল লাগছিল না ছেলের। বিরক্ত হয়েই মাকে জোর করে টেনে বাড়ির বারান্দা থেকে নিচে ফেলে দেয় গুণধর ছেলে। ফার্মেসি কলেজের অধ্যাপক আগে দাবি করেছিল, অসুস্থতার কারণে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বারান্দা থেকে পড়ে গিয়েছিলেন মা। কিন্তু অজানা সূত্র থেকে পুলিশকে ঘটনার তদন্ত করতে বলা হয়। তখনই তদন্তে আসে নয়া মোড়। বিল্ডিংয়ের সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখতেই বিষয়টি পরিষ্কার হয়। 

রাজকোট জোন টুয়ের ডিসিপি করণরাজ বাঘেলা জানান, সিসিটিভি ফুটেজেই স্পষ্ট, জয়শ্রীবেন বারান্দা থেকে পড়ে যাওয়ার সময় সেখানে উপস্থিত ছিল সন্দীপ। প্রথমে এই অভিযোগ অস্বীকার করলেও পরে দোষ স্বীকার করে নেয় সন্দীপ। 

জানায়, অসুস্থ মায়ের দেখাশোনা করতে করতে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছিল সে। সেই কারণেই এই কাণ্ড ঘটায়।

ওই পুলিশকর্তা আরো জানান, জেরার সময় অসুস্থ হয়ে পড়ে সন্দীপ। তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেলে তাকে গ্রেপ্তার করা হবে। ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩০২ ধারায় সন্দীপের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছে পুলিশ।

 

 

এই সংবাদটি 1,402 বার পড়া হয়েছে