সোমবার, ১২ ফেব্রু ২০১৮ ০১:০২ ঘণ্টা

বেফাকের কাউন্সিল সম্পন্ন,আল্লামা শফীই সভাপতি নির্বাচিত

Share Button

বেফাকের কাউন্সিল সম্পন্ন,আল্লামা শফীই সভাপতি নির্বাচিত

 
সিলেট রিপোর্ট:  বাংলাদেশের বেসরকারী (কওমী) মাদ্রাসা সমুহের বড় শিক্ষা বোর্ড “বেফাকুল মাদারিছিল আরাবিয়া” (বেফাক) এর কেন্দ্রীয় কাউন্সিল আজ (১২ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড়ে ৯ টায় ‍রাজধানীর জামিয়া ইমদাদিয়া ফরিদাবাদে শুরু হয়।  কাউন্সিলে সভাপতিত্ব করছেন বেফাকের চেয়ারম্যান ও হেফাজতে ইসলামের আমির আল্লামা শাহ আহমদ শফী।  কাউন্সিল উপলক্ষ্যে গতকাল তিনি ঢাকায় পৌঁছেন। প্রাপ্ত তথ্যে জানাগেছে, আজকের কাউন্সিলে পরবর্তী মেয়াদের জন্য আল্লামা শাহ আহমদ শফীকে সভাপতি ও মাওলানা আব্দুল কুদ্দুসকে মহাসচিব নির্বাচিত করা হয়েছে।  গুরুত্বপূর্ণ সে চার প্রস্তাব হলো, আগামী বছর থেকে অন্যান্য জামাতের মতো মক্তব (নুরানি) বিভাগের বার্ষিক পরীক্ষাও বেফাকের অধীনে পরিচালিত হবে। ২. জরুরি ভিত্তিতে বেফাকের বহুতল ভবন নির্মাণ। ৩. কাফিয়া জামাতের বার্ষিক পরীক্ষাও বেফাকের অধীনে অনুষ্ঠিত হওয়া এবং ৪. ফতোয়া বিভাগের মান উন্নয়নের জন্য আগামী বছর থেকে ইফতার পরীক্ষা বেফাকের আওতায় আনা হবে। কাউন্সিলে উপস্থিত রয়েছেন বেফাকের সিনিয়র সহসভাপতি ও মালিবাগ জামিয়া শরইয়্যার প্রিন্সিপাল আল্লামা আশরাফ আলী, জামিয়া বারিধারার প্রিন্সিপাল আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী, মুফতি মুহাম্মদ ওয়াক্কাস, মাওলানা আবদুল কুদ্দুস, মাওলানা মাহফুজুল হক, মুফতি ফয়জুল্লাহ, মাওলানা মুসলেহুদ্দীন রাজু, মাওলানা নূরুল আমিন প্রমুখ। সভায় বেফাকের যুগ্ম মহাসচিব ও জামিয়া রাহমানিয়ার প্রিন্সিপাল মাওলানা মাহফুজুল হক প্রতিবেদন পেশ করেন।  বেফাকের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব আল্লামা আবদুল কুদ্দুস কওমি মাদরাসার উন্নয়নে বক্তব্য পেশ করেন এবং চারটি প্রস্তাব উত্থাপন করলে সেগুলো সবাই সম্মাতি দিয়ে অনুমোদন দেন।

প্রসঙ্গত, মাওলানা রিজাউল করীম ইসলামাবাদীসহ জমিয়ত নেতৃবৃন্দের প্রচেষ্টায় ’৭৮ সালে শায়েস্তা খান হলের সম্মেলনেই ‘বেফাক’ গঠিত হয়।   জামেয়া কোরআনিয়া লালবাগের সেক্রেটারী মরহুম হাজী আব্দুল ওয়াহহাব ঐ হল ভাড়ার ব্যবস্থা করলেন। ঢাকা নিবাসী জনাব আলহাজ্ব মুহাম্মদ আকীল এবং গেন্ডারিয়ার বর্ষিয়ান মুরব্বী হাজী কোরবান আলী সাহেব উল্লেখযোগ্য চাঁদা দিয়ে সহায়তা করলেন। জমিয়তের সেক্রেটারী মাওলানা মুহিউদ্দীন খান সাহেবের কাঁধে ন্যস্ত হয় মুদ্রণজনিত যাবতীয় ব্যয় ভার।
 বেফাকের প্রথম আহবায়ক মাওলানা রিজাউল করীম ইসলামাবাদীর নেতৃত্বে গঠিত ৬০ সদস্যের ইস্তেক বালিয়া কমিটির ব্যবস্থাপনায় ১৯৭৮ সালের ২৩, ২৪ও ২৫শে এপ্রিল ঢাকা লালবাগের শায়েস্তা খান হলে “মাদ্রাসা শিক্ষার অতীত, বর্তমান ও ভবিষ্যত” শীর্ষক এক ঐতিহাসিক জাতীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। তিন দিন ব্যাপী উক্ত সম্মেলনে উদ্বোধনী বক্তব্য পেশ করেন মাসিক মদীনা সম্পাদক হযরত মাওলানা মুহিউদ্দীন খান এবং খুৎবায়ে ইস্তেক বালিয়া পেশ করেন সম্মেলনের আহবায়ক মরহুম মাওলানা রিজাউল করীম ইসলামাবাদী । বেফাকুল মাদারিছিল আরাবিয়া বাংলাদেশ-এর তিন দিন ব্যাপী ঐতিহাসিক এ সম্মেলনে বিভিন্ন অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন আলহাজ্ব হযরত মাওলানা মোহাম্মদ ইউনুস (র:), শায়খুল মাশাইখ আল্লামা আব্দুল করিম শায়খে কৌড়িয়া (র:), খতীবে আজম হযরত মাওলানা ছিদ্দিক আহমদ (র:), আলহাজ্ব মাওলানা উবায়দুল হক জালালাবাদী, মাওলানা আজিজুল হক প্রমুখ।

 বেফাকের সূচনাতে আহবায়ক কমিটির সভাপতি ছিলেন মাওলানা রিজাউল করীম ইসলামাবাদী (র:), এরপর পটিয়ার মাওলানা ইউনুস ১৯৭৮ থেকে ১৯৯২ পর্যন-, মাওলানা হারুন ইসলামাবাদী ১৯৯২ সাল থেকে ১৯৯৬ পর্যন-, মাওলানা নুর উদ্দীন গহরপুরী ১৯৯৬ সাল থেকে ২০০৫ সাল পর্যন্ত এবং ২০০৫ সাল থেকে বর্তমান সময় পর্যন্ত সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন হাটহাজারী মাদ্রাসার মহাপরিচালক মাওলানা শাহ আহমদ শফী।
 কাউন্সিলে ১১৬ সদস্য বিশিষ্ট আমেলা কার্যনির্বাহী কমিটির তালিকা আসছে..

এই সংবাদটি 1,282 বার পড়া হয়েছে

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com