শুক্রবার, ০২ মার্চ ২০১৮ ০৩:০৩ ঘণ্টা

এক হাতে থাকুক কোরআন, অন্য হাতে কম্পিউটার: মোদি

Share Button

এক হাতে থাকুক কোরআন, অন্য হাতে কম্পিউটার: মোদি

ডেস্ক রিপোর্ট: মুসলমানদেরকে ধর্ম চর্চার পাশাপাশি আধুনিক জ্ঞান ও বিজ্ঞান চর্চায় তাগিদ দিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তিনি বলেছেন, ‘মুসলমানদের এক হাতে থাকতে হবে কোরান, অন্য হাতে কম্পিউটার।’

বৃহস্পতিবার দেশটির রাজধানী নয়াদিল্লিতে ‘ইসলামিক হেরিটেজ: প্রমোটিং আন্ডারস্ট্যান্ডিং অ্যান্ড মডারেশন’ শিরোনামে এক অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন মোদী।

ধর্মনিরপেক্ষ দেশ ভারতে হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা সংখ্যাগরিষ্ঠ হলেও বিশ্বের যে কোনো দেশের তুলনায় ভারতে মুসলমানদের সংখ্যা বহু মুসলমান প্রধান দেশের চেয়ে বেশি। ইন্দোনেশিয়ার পরেই সবচেয়ে বেশি মুসলমানের বসবাস ভারতে। পিউ রিসার্চ সেন্টারের গবেষণা অনুযায়ী ২০৫০ সালে ভারতে অন্য যে কোনো দেশের চেয়ে বেশি মুসলমান বসবাস করবে।

ব্রিটিশ আমলের আগে ভারতে বেশ কিছু শক্তিধর মুসলমান শাসিত রাজ্য থাকলেও পরে আড়াইশ বছরে তারা জ্ঞান বিজ্ঞান চর্চায় পিছিয়ে পশ্চাদপদ গোষ্ঠীতে পরিণত হয়েছে। আবার বিজেপির মতো উগ্র হিন্দুত্ববাদীরা রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় আসার পর মুসলমানরা বিপাকে আছে।

এর মধ্যেই মোদি যোগ দিলেন মুসলমানদের এই অনুষ্ঠঅনে। তিনি তরুণদের ইসলামের উদারতার পথ অনুসরণের তাগিদ দেন। বলেন, ‘সব ধর্মই মানবিক মূল্যবোধকে তুলে ধরে এবং ছড়িয়ে দেয়। কোনো ধর্মই হিংসাকে,সন্ত্রাসকে সমর্থন করে না।’

মুসলমানদের জ্ঞান চর্চায় আরও মনোনিবেশ করার তাগিদ দিয়ে ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘মুসলমান তরুণদের ইসলাম ধর্মের উদার মানবিক বোধে উদ্বুদ্ধ হওয়ার পাশাপাশি আধুনিক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির চর্চা করতে হবে। মুসলমানদের এক হাতে থাকতে হবে কোরান, আর অন্য হাতে কম্পিউটার।

বহুত্ববাদী ঐতিহ্য ভারতের মূল শক্তি উল্লেখ করে মোদি বলেন, ‘বৈচিত্র্যের মধ্যেই নিহিত রয়েছে ভারতীয়দের ঐক্যের বীজমন্ত্র। উগ্রবাদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের শক্তিও এই বহুত্ববাদী ঐতিহ্যের মধ্যেই নিহিত রয়েছে।’

অনুষ্ঠানে জর্দানের রাজা দ্বিতীয় আবদুল্লাহও বক্তব্য রাখেন। তিনি বলেন, ‘যারা ধর্মের নাম নিয়ে হিংসা ছড়ায়, তাদেরকে চিহ্নিত এবং প্রত্যাখ্যান করতে হবে। ধর্মীয় বিশ্বাস আমাদেরকে হিংসা শেখায় না বরং হিংসার বিরুদ্ধে বিকাশের ও সমৃদ্ধির পথে চালিত করে।

এই সংবাদটি 1,070 বার পড়া হয়েছে