বুধবার, ০৭ মার্চ ২০১৮ ০১:০৩ ঘণ্টা

কোয়ারিতে গর্ত ধসে প্রাণহানির ঘটনায় আ.লীগ সভাপতিসহ ৮জনের বিরুদ্ধে মামলা

Share Button

কোয়ারিতে গর্ত ধসে প্রাণহানির ঘটনায় আ.লীগ সভাপতিসহ ৮জনের বিরুদ্ধে মামলা

কোম্পানীগঞ্জ প্রতিনিধি :: সিলেটের সীমান্তবর্তী কোম্পানীগঞ্জের কালাইরাগ পাথর কোয়ারিতে গর্ত ধসে পাঁচ শ্রমিকের প্রাণহানির ঘটনায় মামলায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলী আমজদসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে খনিজ সম্পদ উন্নয়ন ব্যুরো। মঙ্গলবার কোম্পানীগঞ্জ থানায় মামলাটি দায়ের করেন ব্যুরোর উপ-পরিচালক মামুনুর রশিদ।

মামলার অন্য আসামীরা হচ্ছে- কালাইরাগের ফয়জুর রহমান, লেবার সর্দার আব্দুর রউফ, দক্ষিণ কলাবাড়ির তানভীর আহমদ কনাই, ফয়জুল করিম ওরফে কালা ও মাসুক মিয়া, উত্তর রাজনগর গ্রামের আব্দুস সাত্তার ও কালিবাড়ির আলাউদ্দিন ওরফে ‘মরা’ আলাউদ্দিন। মামলায় অজ্ঞাতনামা আরো ৬-৭ জনকে আসামী করা হয়েছে।

মামলার বাদি মামুনুর রশিদ জানান, ‘কালাইরাগের ঘটনার তদন্ত প্রতিবেদন খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ে প্রেরণ করা হলে মন্ত্রণালয়ের নির্দেশক্রমে প্রাণহানির ঘটনায় গর্ত মালিকসহ দোষীদের বিরুদ্ধে খনিজ সম্পদ আইনে মামলা দায়ের করেছেন তিনি।’

এদিকে, কালাইরাগ এবং শাহ আরফিনে পরপর দুই ঘটনায় ৮ শ্রমিকের প্রাণহানির পর পাথর কোয়ারিগুলোতে টাস্কফোর্সের টানা ৮ দিনের অভিযানে ১০৯ টি অবৈধ পাথর উত্তোলন যন্ত্র (বোমা মেশিন) ধ্বংস করা হয়েছে।

গত ২৭ ফেব্রুয়ারি থেকে গতকাল মঙ্গলবার (৬ মার্চ) পর্যন্ত পরিচালিত আট দিনের এ অভিযান পরিচালনা করেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ আশরাফুল হক। বেশ ক’টি অভিযানে খনিজ সম্পদ উন্নয়ন ব্যুরোর উপ-পরিচালক মামুনুর রশিদ উপস্থিত ছিলেন।

যোগাযোগ করা হলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুহাম্মদ আবুল লাইছ জানান, নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও ভোলাগঞ্জসহ উপজেলার পাথর কোয়ারিগুলোতে বোমা মেশিনের ব্যবহার অব্যাহত রেখেছে একটি চক্র। উচ্চ ক্ষমতাসমপন্ন পাওয়ারটিলার ব্যবহারের মাধ্যমে এ যন্ত্র দিয়ে মাটির প্রায় দেড় শ’ ফুট গভীর থেকে পাথর উত্তোলন করায় পরিবেশের ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে। এ অবস্থায় এখন প্রতিদিনই টাস্কফোর্সের অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান তিনি।

এই সংবাদটি 1,005 বার পড়া হয়েছে