বৃহস্পতিবার, ১৫ আগ ২০১৯ ১১:০৮ ঘণ্টা

পানির দামে চামড়া!

Share Button

পানির দামে চামড়া!

সিলেট রিপোর্টঃ

সিলেটে কোরবানির পশুর চামড়ায় দাম পাচ্ছেন না বিক্রেতারা। যে কারণে নেই মৌসুমী ব্যবসায়ীদের উৎপাতও। বিভিন্ন এলাকায় চামড়া নিয়ে বসে থাকলেও ক্রেতা মিলছে না। যারা আসছেন, তারাও চামড়ার দাম খুব কম বলছেন। এমনকি দশ বছর আগের হাজার টাকা দরের চামড়ার দর হাঁকা হচ্ছে মাত্র ২৫টাকা।

অথচ অন্যান্য সময় কোরবানির পর পরই চামড়া কিনতে ভ্যান নিয়ে হাজির হয়ে যেতেন পশুর মালিকের দোরগোড়ায়। দামও পাওয়া যেতো ভালো। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ‘ঢাকার ট্যানারি মালিকরা আগের টাকাই আটকে রেখেছেন’ যে কারণে সিলেটের আড়তদাররা পানির দরে চামড়া ক্রয় করছেন। এতে বেশি বিপাকে পড়েছেন এতিমখানাসহ বিভিন্ন মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ; যারা কোরবানির মৌসুমি চামড়া বিক্রি করে এতিমখানার ব্যয় নির্বাহ করে থাকেন।

সিলেটের চামড়ার হাট বসে রেজিস্ট্রারি মাঠে। সেখানে গিয়ে দেখা যায়, ভালো ও বড় মানের কাঁচা চামড়া বিক্রি হচ্ছে সর্বোচ্চ ২শ থেকে ২৫০ টাকায়। যা গত বছরের তুলনায় অর্ধেক প্রায়। আম্বরখানার একজন বাসিন্দা জানালেন, তিনি নিজে যে গরুটি কোরবানি দিয়েছেন সেটির দাম লাখ টাকা। কিন্তু এ গরুটির চামড়া তিনি বিক্রি করেছেন মাত্র ২৫টাকায়।

এবার পরিস্থিতি পাল্টে যাওয়ার কারন খুঁজতে গিয়ে জানা গেছে, মুলত আন্তর্জাতিক বাজারে চামড়ার চাহিদা কমে গেছে এবং এর নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে দেশীয় বাজারে। তাছাড়া এবার মৌসুমী ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে কাঁচা চামড়া প্রায় কিনছেনই না আড়তদাররা। যারা কাঁচা চামড়া কিনছেন তাদের বলে দেয়া হচ্ছে, চামড়ায় লবন মাখিয়ে রাখতে। আড়তদারদের বেশিরভাগ কাঁচা চামড়া না কেনায় মৌসুমী ব্যবসায়ীরা সম্ভাব্য ঝামেলা এড়াতে চামড়া ব্যবসায় এবার লোকজনও কম নেমেছেন। আড়তদাররা বলছেন চামড়া কেনার জন্য তাদের কাছে পর্যাপ্ত মুলধনের অভাব রয়েছে। ট্যানারি মালিকদের কাছে তাদের গত বছরের পাওনা টাকাই বকেয়া রয়েছে।

সম্প্রতি কোরবানির পশুর চামড়া সংগ্রহ, সংরক্ষণ ও পরিবহন বিষয়ে চামড়ার বেপারি, আড়তদার ও ট্যানারি মালিকদের সঙ্গে তিন মন্ত্রণালয়ের যৌথ সভা হয়েছে। ওই বৈঠকে ঢাকায় প্রতি বর্গফুট লবণযুক্ত গরুর চামড়ার দাম ৪৫ থেকে ৫০ টাকা এবং ঢাকার বাইরে ৩৫ থেকে ৪০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছিলো। তবে তা মানা হচ্ছে না সিলেটে।
এদিকে
চামড়ার ক্রেতা না পেয়ে প্রায় ৮০০ চামড়া মাটিতে পুঁতে রাখার কবর পাওয়া গেছে।

এই সংবাদটি 1,013 বার পড়া হয়েছে

WP2FB Auto Publish Powered By : XYZScripts.com