বৃহস্পতিবার, ১৬ জানু ২০২০ ০৬:০১ ঘণ্টা

তিন মাস ধরে তরুণীকে আটকে নির্যাতনের অভিযোগে লম্পট গ্রেফতার

Share Button

তিন মাস ধরে তরুণীকে আটকে নির্যাতনের অভিযোগে লম্পট গ্রেফতার

ডেস্ক রিপোর্ট:দুলাভাইর নির্যাতনের কবল থেকে বোনকে রক্ষা করতে মোগলাবাজার থানা পুলিশের কাছে নালিশ করেছিলেন মৌলভীবাজারের রাজনগরের জনৈক তরুণী। তরুণীর অভিযোগ পেয়ে বোনকে উদ্ধার করতে যায় টহল পুলিশ। ঘটনাস্থলে গিয়ে পাওয়া যায়, কেবল বোনকেই নির্যাতন করা হচ্ছে না, উপরন্তু, বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এক তরুণীকে তিন মাস ধরে আটকে রেখে নির্যাতন করছে ওই লম্পট। শাহ আলম আহমদ মানিক (৩৬) নামের ওই লম্পটকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। নির্যাতিতা স্ত্রীকে ওসমানী হাসপাতালে এবং অপর ভিকটিমকে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টার(ওসিসি)-এ ভর্তি করা হয়েছে।
গ্রেফতার মানিক মৌলভীবাজারের রাজনগর থানার নিজগাঁও গ্রামের মৃত আব্দুল খালিকের পুত্র এবং বর্তমানে মোগলাবাজার থানাধীন গোটাটিকর এলাকায় জুবেল মিয়ার কলোনীর ভাড়াটে বাসিন্দা।
মোগলাবাজার থানার ওসি আখতার হোসেন ঘটনার বর্ণনা দিয়ে বলেন, চুরি-ডাকাতির সাথে মানিকের সংশ্লিষ্টতা রয়েছে। সে প্রতিদিন রাত ১২টায় বাসা থেকে বের হয়ে যেতো বলে তার পরিবারের সদস্যরা জানান। মানিকের শ্যালিকার অভিযোগের প্রেক্ষিতে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে অপর ভিকটিমের সন্ধান পায়। তিনি জানান, পুলিশ তার অপরাধের তদন্ত করছে।
বৃহস্পতিবার সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (মিডিয়া এন্ড কমিউনিকেশন) জেদান আল মুসা স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, স্ত্রী নির্যাতনের অভিযোগ পেয়ে গত ১৪ জানুয়ারি মোগলাবাজার থানা পুলিশ ওই এলাকার একটি কলোনীতে অভিযান চালায়। অভিযানকালে নির্যাতিতা স্ত্রীর পাশাপাশি অপর এক ভিকটিমকে উদ্ধার করে পুলিশ। পুলিশী জিজ্ঞাসাবাদে তরুণী ওই ভিকটিম জানায়, বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তিন মাস আগে শাহ আলম আহমদ মানিক (৩৬) তাকে ওই কলোনীতে নিয়ে আসে। বিয়ে না করে তিনমাস ধরে ভয়ভীতি দেখিয়ে সে তাকে ধর্ষণ করছে। এ ঘটনায় মোগলাবাজার থানায় মানিকের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০(সং/০৩) এর ৯(১) ধারায় একটি মামলা রুজু করা হয়েছে। তাকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

এই সংবাদটি 1,088 বার পড়া হয়েছে

WP2FB Auto Publish Powered By : XYZScripts.com