এই সরকারের আমলে দেশ ও জাতী নিরাপদ নয়: মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর

প্রকাশিত: ৮:৫৪ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৪, ২০২১

এই সরকারের আমলে দেশ ও জাতী নিরাপদ নয়: মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর

 

তৌহিদ চৌধুরী প্রদীপ, সুনামগঞ্জ থেকে:

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর মহান স্বাধীনতার ঘোষক শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান (বীর উত্তম) ও বীর শহীদের স্মরণ করে বলেন, এড: ফজলুল হক আসপিয়া ছিলেন গণমানুষের নেতা। দেশের এই ক্রান্তিলগ্নে তাঁরমত নিবেদিত নেতার খুবই প্রয়োজন ছিল। তিনি বিএনপির একজন নিবেদিত নেতা ছিলেন। গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে তিনি ছিলে সক্রীয় একজন নেতা। আওয়ামী সরকার গণতান্ত্রিক সরকার নয়। এরা মিথ্যাচার, জনগনের সমনে বলেন এক রকম, কাজ করে আরেক রকম। এই সরকার নির্বাচন ব্যবস্থা কে ধ্বংশ করে দিয়েছে। অতীতে ‘৭২ সালে তারা এমনটি করেছিল। চাল ১০ টাকা কেজি, কৃষকের সার, বীজ, ঘরে ঘরে চাকুরি দেবে বলে মানুষের সাথে প্রতারণা করছে। বিদ্যুৎ থেকে শুরু করে সকল নিত্যপন্নের দাম বাড়িয়ে মানুষকে আজ অতিষ্ঠ করে তুলেছ। এই সরকার জনগনের সরকার নয়। তাই জনগনের কথা তাদের মাথায় নেই। আ’লীগের বড়-বড় ব্যবসায়ী নেতাদের ছেলেরা মানুষ খুন করে নির্বিগ্নে পালিয়ে যাচ্ছে। পুলিশ কে তারা ব্যবহার করে ক্ষমতায় টিকে আছে। মাছের রাজা ইলিশ আর এখন দেশের রাজা পুলিশ। বিএনপির নেতাদের মিথ্যা মামলা, গুম, খুন আর দেশের টাকা লুটপাটে ব্যস্ত।
ওবায়দুল কাদের ঘুম থেকে উঠেই বিএনপি’র নেতাকর্মীদের কে দোষারোপ করে শুধু মিথ্যা কথা বলেন। বিএনপি সবসময় বিশ্বাস করে বাংলাদেশে হিন্দু-মুসলিম-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান সকল ধর্মের মানুষ একসাথে শান্তিপ্রিয় ভাবে বসবাস করতে। তাদের লোকেরা সাম্প্রদায়ীক দাঙ্গা লাগিয়ে বিএনপি ও অন্যদের দোষারূপ করে। আওয়ামী লীগের সময় এখন শেষ। তারা দেউলিয়া হয়ে যাচ্ছে। তাদের অত্যাচার নিপিড়নের কারনে একদিন জনতার কাঠগড়ায় তাদেরকে দাঁড়তে হবে। দেশের গণতন্ত্র মানুষের অধিকার আদায়ে বেগম জিয়া, তারেক রহমান অন্যায়ের সাথে আপোষ করেননি। দেশের সকল মানুষ আজ আওয়ামীলীগের বিরোদ্ধে ঐক্যবদ্ধ। এই সরকারের পতন চায়। বিএনপি সবসময় শান্তি ও সম্প্রীতির সরকার গঠন করে দেশ পরিচালনায় বিশ্বাসী। দেশবাসী কে সাথে নিয়ে ঐক্যবদ্ধ হয়ে এই ফ্যাসিষ্ট সরকারকে সড়িয়ে জনগনের সরকার প্রতিষ্ঠা করা হবে।
তিনি আরো বলেন, দেশ স্বাধীনের পর এমন সময় আর আমরা অতিক্রান্ত করিনি। দেশে মিথ্যা মামলা, খুন, গুমের রাম রাজত্ব চলছে। আমরা কেউ জানিনা আমাদের সন্তানরা, মা-বোনরা ঘরের বাহিরে গেলে ঘরে ফিরে আসবে কি-না। দেশে বিএনপির সহস্রাধিক নেতা কর্মীকে হত্যা করা হয়েছে। বিনা কারনে থানায় নিয়ে নিরৃযাতন করা হয়েছে। মিথ্যা বানোয়াট মামলা দিয়ে বেগম জিয়া, তারেক জিয়াসহ দলীয় নেতাকর্মীদের নির্যাতন করা হচ্ছে।
বিএনিপর চেয়ারপার্সন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপির বর্ষিয়ান রাজনীতিবিদ সাবেক হুইপ মরহুম এড: ফজলুল হক আসপিয়া স্মরণে শোক সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি এ কথা বলেন।
সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপির আয়োজনে শহরের জান্নাহ কমিউনিটি সেন্টারে অনুষ্ঠিত শোক সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা বিএনপির সভাপতি কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক এমপি কলিম উদ্দিন আহমদ মিলন। জেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক এড: নুরুল ইসলাম নুরুল এর সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, বিএনপির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান এ.জেড.এম.জাহিদ হোসেন, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ডা:শাখাওয়াত হোসেন জীবন, চেয়ারপার্সন এর উপাদেষ্টা ডা.এনামুল হক, শেখ সারুয়ার, রহিছ উদ্দিন সরকার, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য কারুজ্জমান, ব্যারিষ্টার আ: ছালাম, সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, সবেক এমপি নাসির উদ্দিন চৌধুরী, কেন্দ্রীয় সদস্য মিজানুর রহমান চৌধুরী, সাবেক এমপি জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি নজির হেসেন।
অন্যানের মাঝে বক্তব্য রাখেন, কামরুল ইসলাম কামরুল, আনসার উদ্দিন, ওয়াকিফুর রহমান গিলমান, আকবর আলী, জেলা বিএনপি নেতা মঈন উদ্দিন সোহেল, এড: মাসুক আলম, এড: আ: হক, এড: শেরেনুর আলী, রেজাউল করিম, আবুল কালাম আজাদ, নজরুল ইসলাম, মো: আনিসুল হক, মোনাজ্জির সুজন, এড: শাহীনুর রহমান, জামাল উদ্দিন, নাদের আহম্মেদ, সৈয়দ দিপু মিয়া, ব্যারিষ্টার আবিদুল হক, কাইয়ুম জালালী পংকি,
জেলা মহিলা দল সভানেত্রী লুৎফা আনোয়ার, হাফেজা ফেরদৌস লিখন, সাংগঠনিক সম্পাদক খাদিজা কলি প্রমুখ।

এই সংবাদটি 44 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

[latest_post][single_page_category_post]

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com