সোমবার, ০৪ ডিসে ২০১৭ ১১:১২ ঘণ্টা

লন্ডনে অস্কারখ্যাত বৃটিশ কারী এওয়ারডসের ১৩ তম বর্ণাঢ্য আসর

Share Button

লন্ডনে অস্কারখ্যাত বৃটিশ কারী এওয়ারডসের ১৩ তম বর্ণাঢ্য আসর

লন্ডন থেকে আব্দুল মুকিত অপি : চোখ ধাঁধাঁনো আয়োজন,বর্নিল আলোকছটা আর হাজার মানুষের প্রাণবন্ত উপস্থিতি নিয়ে সোমবার লন্ডনে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল কারী শিল্পের অস্কারখ্যাত বৃটিশ কারী এওয়ারডসের ১৩ তম আসর । টেমসপারের বাটারসী পার্কের বাটারসী ইভলুশনে সন্ধ্যা ৬ টা থেকে রাত ১১ টা পর্যন্ত অন্য এক জগতে যেন সময় কাটান অতিথিরা ! সুরমা পারের সন্তান এনাম আলী এমবিই তার যাদুমন্ত্রে এই অনুষ্ঠানকে নিয়ে গেছেন অনন্য এক উচ্চতায় । এটি এখন পৃথিবীজুড়ে কোন বাঙালির উদ্যোগে করা সবচে বড় আয়োজন ।
অনুষ্ঠানে ছিল বৃটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে’র শুভেচ্ছা বক্তব্য, সাবেক প্রধানমন্ত্রী ডেভিড কামেরনের মূল্যায়ন , পুরস্কার বিতরণ, বাউল করিমের গান , আধুনিক নৃত্য ও অভিজাত নৈশভোজ । জন প্রিয় টিভি ব্যক্তিত্ব রাগিহ ওমরের সাবলিল উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্যে এনাম আলী পুত্র জাফরি আলী বলেন,’এই অনুষ্ঠান আমাদের কারী শিল্পের একতার কণ্ঠস্বর । আমরা এই শিল্পের ইমেজ বাড়াতে এবং সংকট দূর করতে কাজ করে যাচ্ছি ।’ এরপর প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে’র বক্তব্য পরদায় ভেসে ওঠে । তিনি বলেন,’কারী শিল্প বৃটেনের জাতীয় ও স্থানীয় অর্থনৈতিক উন্নয়নে অসাধারণ ভূমিকা রাখছে । বৃটেনের কারী হাউসগুলো আজ খুবই জনপ্রিয় জায়গায় আছে ।’ তিনি বিজয়িদের অভিনন্দন জানিয়ে বৃটিশ কারী এওয়ারডসের সাফল্য কামনা করেন ।
ডেভিড ক্যামেরনের কথায় ছিল বাংলাদেশের প্রশংসা । তিনি বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশ উল্লেখ করে বলেন,’বাংলাদেশ একটি শাইনিং দেশ । কাজের সুযোগ সৃষ্টি হচ্ছে,রপ্তানি ক্ষেত্র প্রসারিত হচ্ছে ।’ তিনি বলেন,’কারী আমাদের সংস্কৃতি এবং জীবন যাত্রায় নিয়মিত অবদান রাখছে । ‘ তিনি এওয়ারড বিজয়ি ও নমিনেশনপ্রাপ্তদের অভিনন্দন জানান । বৃটিশ কারী এওয়ারডসের প্রতিষ্ঠাতা ও আইওন টিভির চেয়ারম্যান এনাম আলী এমবিই তার বক্তব্যে দেশ-বিদেশে ছড়িয়ে থাকা বৃটিশ কারী এওয়ারডসের লাখ লাখ শুভানুধ্যায়ীদের প্রতি তার গভীর কৃতজ্ঞতা জানান । তিনি বলেন,’কারী শিল্পের মর্যাদা বাড়াতে গত ১৩ বছর এই অনুষ্ঠান সন্জিবনী ভূমিকা রাখছে । আমরা আগামিতে এই শিল্পের উন্নয়নে সব চেষ্টাই করে যাবো ।’ এনাম আলী এমবিই বলেন,’বৃটেনের অর্থনৈতিক উন্নয়নে কারী শিল্প অবদান রাখছে । এজন্য ভিসা ব্যবস্থা সহজ করতে হবে । সংকটে পড়া এই শিল্পে এখন সপ্তাহে তিনটি রেস্টুরেন্ট বন্ধ হচ্ছে । আমরা কথা বলছি,দিল্লী থেকে ভিসা অফিস ঢাকায় নিয়ে আসতে । এবার আমরা অনেকটাই সফল । অনেকেই ভিসা পেয়েছেন এই অনুষ্ঠানে যোগ দিতে ।’ অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বৃটিশ পরিবহনমন্ত্রী ক্রিস গ্রেলিং,লিবডেমের প্রধান ভিন্স কেবল,ইউরো ফুডস ও কুকড-এর প্রধান সেলিম হোসেইন এমবিই । ভিন্স তার বক্তব্যে কারী শিল্প বাঁচাতে ভিন্দালু ভিসা চালুর প্রস্তাব করেন । নমিনেশন পাওয়া শতাধিক রেস্টুরেন্টের মধ্যে বিজয়ি হয়–মোম্বাই লাউন্জ ( ডারহাম ),সিনেমন ক্লাব ( লন্ডন ),কলোসি ইন্ডিয়ান রেস্টুরেন্ট ( চেলথেহাম ), সাম্পান ব্রমলি ( কেন্ট ), সানাম তান্দুরি ( স্কটল্যান্ড ),দিসম কিংস ক্রস ( লন্ডন ),রসুই ইন্ডিয়ান কিচেন ( সোয়ানসি ),ভিকারয় ( কার্লিসল ), দাবাওয়াল জেসমন্ড ( নিউক্যাসল ),আশা’স ইন্ডিয়ান ( বারমিংহাম ) । নমিনেশন পাওয়া ১১টি টেইকওয়ের মধ্যে বিজয়ি হয় দ্যা চিলি পিকল ( ব্রাইটন ) ।
বিচারক প্যানেলে ৭জন বৃটিশ সাংবাদিক,সাবেক শেফ,ক্যাটারিং বিশেষজ্ঞ,ইভেন্ট কর্মকর্তা ছিলেন ।
হাজার হাজার বিদেশি মানুষের ভিড়ে যখন সাইদা তানি গেয়ে ওঠেন–‘আমার বন্ধুয়া বিহনেগো সহেনা পরাণেগো…কিংবা বসন্ত বাতাসে সইগো বসন্ত বাতাসে…’ তখন আবেগের জলে চিকচিক করে অনেক বৃটিশ-বাঙালির চোখ । একজন বাঙালির উদ্যোগে এমন নান্দনিক আয়োজনে উৎফুল্ল বিশিষ্ট কবি শামীম আজাদ বললেন–‘এটি আমাদের আনন্দের একটা অংশ । এটাকে সহযোগিতা করা অত্যন্ত জরুরি ।’ অনুষ্ঠানের শেষ দিকে এনাম আলী এমবিই আইওন টিভির কলাকুশলীদের মন্চে ঢেকে পরিচয় করিয়ে দেন ।

এই সংবাদটি 1,006 বার পড়া হয়েছে