রবিবার, ১৪ জানু ২০১৮ ০৫:০১ ঘণ্টা

সিপিডির প্রতিবেদন ‘অল রাবিশ’: অর্থমন্ত্রী

Share Button

সিপিডির প্রতিবেদন ‘অল রাবিশ’: অর্থমন্ত্রী

ডেস্ক রিপোর্ট :

বাংলাদেশের অর্থনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে গবেষণা প্রতিষ্ঠান সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ বা সিপিডি যে প্রতিবেদন দিয়েছে তাকে ‘অল রাবিশ’ বলে উড়িয়ে দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

সিপিডির প্রতিবেদন প্রকাশের পর দিন রবিবার সচিবালয়ে এ বিষয়ে মুহিতের প্রতিক্রিয়া জানতে চান সাংবাদিকরা। এ সময় তিনি প্রতিষ্ঠানটির প্রতি বিরক্তি প্রকাশ করেন।

মন্ত্রী বলেন, সিপিডি সব সময় নেতিবাচক কথা বলে। তারা বাংলাদেশকে টেনে নামানোর চেষ্টা করছে।

২০১৭-১৮ অর্থবছরের প্রথম অন্তর্বর্তীকালীন পর্যালোচনা তুলে ধরতে শুক্রবার রাজধানীতে সংবাদ সম্মেলন করে সিপিডি। এতে সিপিডির সম্মানীয় ফেলো দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য ২০১৭ সালকে ব্যাংক কেলেঙ্কারির বছর আখ্যা দেন। বলেন, ‘ব্যাংক অস্থিতিশীলতা নিরসনে কোনো পদক্ষেপ ২০১৮-তে হবে সেটাও আমরা কোনো কিছু লক্ষণ দেখতে পারছি না।’

একই সংবাদ সম্মেলনে দাবি করা হয়, বাংলাদেশে ধনী-গরিবের বৈষম্য বাড়ছে। গরিবের আয় কমলেও ধনীর আয় বাড়ছে।

সিপিডির গবেষণা অনুযায়ী ২০০৫ সালে সবচেয়ে গরিব পরিবারে খানাপ্রতি (একক বাড়িতে আয়) আয় ছিল ছিল ১১০৯ টাকা, যা কমে ২০১৬ সালে ৭৩৩ টাকা হয়েছে। অন্যদিকে ধনী পাঁচ শতাংশের খানা প্রতি আয় ৩৮ হাজার ৭৯৫ থেকে ৮৮ হাজার ৯৪১ টাকা হয়েছে।

সিপিডির গবেষণা পরিচালক তৌফিকুল ইসলাম খান বলেন, ‘পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর কাছে প্রবৃদ্ধির সুফল পৌঁছায়নি। গরিবরা আরও গরিব হচ্ছে, ধনীরা আরও ধনী হচ্ছে।’

আবার বাংলাদেশে দারিদ্র্য বিমোচনের গতি হ্রাস পাচ্ছে, পর্যাপ্ত কর্মসংস্থান তৈরি হচ্ছে না উল্লেখ করে ভবিষ্যতের টেকসই প্রবৃদ্ধি নিয়ে আশঙ্কার কথাও জানানো হয় প্রতিবেদনে।

সিপিডির এই প্রতিবেদন সরকারের অর্থনৈতিক ‍উন্নয়নের দাবির সঙ্গে সাংঘর্ষিক। এ বিষয়ে জানতে চাইল অর্থমন্ত্রী এক কথায় এই প্রতিবেদকে উড়িয়ে দেন। বলেন, ‘নো নো নো, অল রাবিশ।’

সিপিডিকে সব সময় নেতিবাচক উল্লেখ করে মুহিত বলেন, ‘বাংলাদেশ যে এতসব অর্জন করেছে, এই ব্যাপারে কখনোই সিপিডি কোনো রিকগনাইজ করেনি।’

২০১৭ সালকে ব্যাংক কেলেঙ্কারির বছর বলার বিষয়ে প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘কই, অত বড় কেলেঙ্কারি (হলমার্ক) হয়ে গেল, তখন তো তারা কিছু বলেনি।’

ব্যাংক খাতের জন্য অর্থ মন্ত্রণালয়ের নজরদারির ঘাটতি আছে বলে সিপিডির অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, ‘আই হ্যাভ নো কমেন্ট।’

এর আগে সচিবালয়ে মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (এমসিসিআই) সঙ্গে বৈঠক করেন মন্ত্রী। এতে এমসিসিআইয়ের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন সংগঠনটির সভাপতি নিহাদ কবির।

এই সংবাদটি 1,009 বার পড়া হয়েছে

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com