বুধবার, ০৫ ডিসে ২০১৮ ১১:১২ ঘণ্টা

ক্রোধের কাছে কাণ্ডজ্ঞান হারাবেন না : মুসা আল হাফিজ

Share Button

ক্রোধের কাছে কাণ্ডজ্ঞান হারাবেন না :  মুসা আল হাফিজ

মুসা আল হাফিজ:

কুতাইবা বিন মুসলিমের (রহ.) কিছু সেনা পরাজিত প্রতিপক্ষের রাজকীয় প্রতিক পদদলিত করলো। তিনি তাদেরকে সেনাবাহিনী থেকে বিতাড়িত করলেন। বললেন, যারা ক্রোধের কাছে কাণ্ডজ্ঞান হারায়, তাদের পক্ষে যে কোন বিপর্যয় ডেকে আনা সম্ভব।
ক্রোধের কাছে কাণ্ডজ্ঞান হারাবেন না। যাকে শ্রদ্ধা করতে পারছেন না, তার সাথে অন্তত ভদ্র আচরণ করুন। ছবিকে যদি পায়ে দলেন নিছক ক্রোধের কারণে, এ ক্রোধ অভদ্র। আর যদি তা করেন দ্বীনের জন্য, দ্বীন আপনাকে এ কাজের অনুমতি দেয় না।
এর মাধ্যমে এমন এক নিকৃষ্ট ধারা তৈরী হবে, যার ফলে প্রত্যেকের মতের বিরোধিদের প্রত্যেকেই পা দিয়ে মাড়াতে শুরু করবে।
*যারা খুনী, হামলাকারী,তাদের বিচার অবশ্যই হওয়া চাই। আইনি পথে হাঁটুন। আইন কার্যকরের জন্য আন্দোলনের উচিত প্রক্রিয়া অবলম্বন করুন। কিন্তু এমন কিছু করবেন না, যাতে আরো বহু প্রাণ ঝরে, আরো রক্তপাত হয়।
* যাদেরকে প্রতিপক্ষ ভাবছেন, তাদেরকে পরাজিত করলেন তখনই, যখন তাদের সঙ্গে থাকা লোকদেরকে আপনার আদর্শ দিয়ে আপনার সাথে নিয়ে আসতে পারবেন। এই যে লক্ষ লক্ষ মানুষ ভিন্ন পথে, ওরা তো ভিন্ন পন্থাকে জীবিত রাখবেই। যদি চান তা স্তব্ধ হোক, তাহলে এই মানুষগুলোকে ফিরিয়ে আনার পথে হাঁটুন। যেভাবে এবং যা করলে লোকেরা ভুলকে ভুল বুঝে এবং ভুল থেকে মন ফেরায়, সেভাবে কাজ করুন, সেসব কাজ করুন।
* ক্ষোভের প্রচার কমান। কোনো ফায়দা নেই। ঘৃণা আরো ঘৃণা ডেকে আনে। মনে রাখবেন, প্রত্যেক ক্রিয়ার ঠিক সমান ও বিপরীত আরেকটি প্রতিক্রিয়া রয়েছে। এই ক্রিয়া- প্রতিক্রিয়া যত তীব্র হতে থাকবে, জনগণের হৃদয় ও মগজ থেকে তত বেশি স্থান হারাতে হবে।
* এই যে ডামাডোল ও উত্তেজনা, একে দাওয়াতি চেতনা ও উম্মাহের দরদে রূপান্তরিত করে ছাত্র- শিক্ষকদের একেকজন জীবন্ত দায়ী ইলাল্লাহ হিসেবে গড়ে তুলুন। ভ্রান্ত ধারা তো শক্তি হারাবেই, দাওয়াতের এই কাজ এগিয়ে যাবে আরো বহু দূর।
* বিভ্রান্তির সবচেয়ে বড় প্রতিবাদ হল হককে ছড়িয়ে দেয়া, প্রতিষ্ঠা দেয়া। গ্রামে-গঞ্জে, শহরে- নগরে আরো জোরদারভাবে, ইতিবাচকভাবে কাজ নিয়ে ছড়িয়ে পড়ুন। সংঘাতকে এড়িয়ে চলুন কথা ও কাজে।
* ভারসাম্যের কান্নার আওয়াজ শুনতে পাচ্ছেন? রক্তাক্ত এতেদালের কাতরানি লক্ষ্য করছেন? তার রক্ত আর ঝরানো উচিত নয়। মুসলমানকে কাফির প্রতিপন্ন না করা কাফিরকে মুসলমান বানানো দাওয়াতের দাবি। দাওয়াতি মেজাজ ও ভারসাম্যকে স্থান দিন উত্তেজনার উপরে।
সবাই দায়িত্ববান পরিস্থিতি আরো খারাপ না হয়ে অনুকূলে আসবেই, ইনশা আল্লাহ।

এই সংবাদটি 1,026 বার পড়া হয়েছে

WP2FB Auto Publish Powered By : XYZScripts.com