বৃহস্পতিবার, ২৪ জানু ২০১৯ ০৮:০১ ঘণ্টা

আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী প্রসঙ্গে কিছু কথা কিছু ব্যাথা

Share Button

আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী প্রসঙ্গে কিছু কথা কিছু ব্যাথা

 

সিলেট রিপোর্ট:

লক্ষ কোটি মুমিনের প্রাণের স্পন্দন কারা নির্যাতিত মজলুম আলেমেদ্বীন হেফাজতে ইসলামের মহাসচিব আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী ৷ বয়স প্রায় সত্তরের কোটা ছুঁইছুঁই ৷ রিমান্ডের পর থেকে বার্ধক্যজনিত রোগ সহ দীর্ঘদিন যাবৎ হৃদরোগ, ডায়াবেটিস ও কিডনিরোগে আক্রান্ত হয়ে উন্নত চিকিৎসার অভাবে মানবেতর জীবন যাপন করছেন মজলুম এ আলেমেদ্বীন ৷

পাসর্পোট না থাকায় উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশেও যেতে পারছেন না তিনি ৷ সরকারী কর্তৃপক্ষের নিকট বার বার পাসপোর্ট ফেরৎ চেয়েও ব্যর্থ হয়েছেন। ।দেশের এই হাদীস বিশারদের সাথে এমন ন্যাক্কারজনক আচরণ বড়ই দুঃখজনক ৷
২২ জানুয়ারী থেকে শায়েখ আবারো অসুস্থ হয়ে বিচানায় শায়িত ৷ গতকাল ২৩ জানুয়ারী প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে হাটহাজারী মাদরাসায় নিয়ে আসা হয়েছে ৷ এখন রাত ৪:২৩ মিনিট ৷ হযরতের শিয়রেই দাঁড়িয়ে আছি ৷ বন্ধুবর ইনআমুল হাসান ফারুকী সহ আমরা পুরোটা রাত নির্ঘুম কাটাচ্ছি ৷ এতে কোন কষ্ট হচ্ছে না ৷ সৌভাগ্য মনে হচ্ছে ৷ তবে যখনি শায়েখের দিকে তাকাচ্ছি তখন চোখের পানি আর ধরে রাখতে পারছি না ৷ শায়েখ যারপর নাই দূর্বল হয়ে পড়েছেন ৷ ঠিকমত ঘুমাতেও পারছেন না ৷ একটু ঘুমাচ্ছেন তো পরক্ষনি আবার জেগে উঠছেন ৷ এপিঠ-ওপিঠ করছেন ৷ উন্নত চিকিৎসার অভাবে শায়েখ যেন আজ একটা জীবন্ত লাশে রূপান্তরিত হয় পড়েছেন ৷ শরীর এতটাই দূর্বল যে, আমাদের দু’চারজনের গায়ে ভর করেও তিনি ভালভাবে দাঁড়াতে পারছেন না ৷ শায়েখ যে কতটা দূর্বল হয়ে পড়েছেন সেটা কাছ থেকে দেখা ছাড়া বুঝা সম্ভব নয় ৷

আলহামদুলিল্লাহ, সকলের দুআয় শায়েখের শারিরীক অবস্থা আজ একটু উন্নতির দিকে ৷ ইনশাআল্লাহ, দ্রুতই শায়েখ পরিপূর্ণ সুস্থ্য হয়ে উঠবেন ৷ উন্নতি চিকিৎসা গ্রহণ না করার কারণে কিছুদিন পর পর স্বাস্থ্যের অবনতি হয়; অসুস্থতা বেড়ে যায় ৷ যখনি অসুস্থ হন পাসপোর্ট না থাকায় দেশের বাইরে যাওয়ার সুযোগ না থাকায় চট্টগ্রাম নগরীর সি এস সি আরে সামান্য চিকিৎসা নিয়েই ঘরে ফিরতে হয় ৷ বিনা চিকিৎসায় এভাবে মানবেতর জীবনযাপন করে কয়দিন বেঁচে থাকবেন আপোষহীন এই নেতা? উন্নত চিকিৎসার অভাবে যদি না ফেরার দেশে চলে যান কভু পূরণ হবে কি তাঁর শূণ্যস্থান?

পাসপোর্ট না থাকার দরূন বাংলার ইলমাকাশের একটি উজ্জ্বল নক্ষত্রকে উন্নত চিকিৎসার অভাবে এভাবেই মৃত্যু মুখে ঠেলে দেয়া হবে কেনো? আমাদের কি কিছু করণীয় নেই?
কি করণীয় আমাদের, শুধু দুআ দরূদ, খতমে কুরআন আর খতমে বোখারী? নাকি সকলের দুআ চেয়ে ফেসবুকে একটা পোস্ট দিয়ে আমাদের করণীয় আর দায়িত্ব,কর্তব্য শেষ?

২০১৩ সালে পাসপোর্ট জব্দ করার পর হজ্ব-ওমরা করার জন্যও আজ পর্যন্ত পাসপোর্ট ফেরৎ দেয়া হলনা কেন? পাসপোর্ট পেলে কি শায়েখ দেশ ছেড়ে বিদেশ চলে যাবেন? শাপলার ভয়াবহ সেই কালো রাতে যিনি তৌহিদী জনতাকে ছেড়ে যাননি আমরণ তিনি তৌহিদী জনতাকে ছেড়ে যাবেন না ৷ পাশেই থাকবেন ৷

আমাদের যা করণীয় হতে পারেঃ

১/ তিনি দেশপ্রেমিক একজন সচেতন নাগরিক ৷ পাসপোর্ট তিনার নাগরিক অধিকার ৷ কোন কারণে, কার ইশারায় পাসপোর্ট জব্দ করা হয়েছে তা খোজে বের করে প্রয়োজনে আইনি প্রক্রিয়ায় হলেও পাসপোর্ট ফেরতের জোর চেষ্টা চালানো ৷

২/ আল্লামা বাবুনগরী হেফাজতের মহাসচিব হিসেবে তার পাসপোর্ট ফিরে পেতে হেফাজতের অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে ৷ এ ব্যপারে হেফাজতের দায়বদ্ধতা অনেক বেশি ৷ হেফাজত কখনো এ দায় এড়াতে পারে না ৷

৩ / সরকার প্রধানের সাথে যেসব ওলামায়ে কেরামের সু-সম্পর্ক আছে পাসপোর্টের ব্যপারে তাঁদেরও স্ব-রব ভূমিকা পালন করা সময়ের দাবী ৷

৪/ রাষ্ট্রের পক্ষ থেকে আল্লামা বাবুনগরীর উপর দেশে ত্যাগে নিষেধাজ্ঞা আরোপ হয়নি ৷ এরপরও পাসপোর্ট কেন জব্দ তা জানতে চেয়ে হেফাজত বা তৌহিদী জনতার পক্ষ থেকে হাইকোর্টে একটি রিট দায়ের করা প্রয়োজন ৷

পরিশেষে আমি আল্লামা বাবুনগরী হাফীজাহুল্লাহুর একজন নগণ্য ভক্ত ও ছাত্র হিসেবে প্রধানমন্ত্রীর সাথে যেসব ওলামা মাশায়েগণের সুসম্পর্ক রয়েছে শ্রদ্ধার সহিত তাঁদের নিকট আবেদন করতে চাই, রিমান্ড নির্যাতিত মজলুম আলেমেদ্বীন আল্লামা বাবুনগরীর পাসপোর্টের ব্যপারে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে, পাসপোর্ট ফেরৎ নিয়ে উন্নত চিকিৎসার সুযোগ করে দিন ৷

মুফতী আমিনী রহ.কে যেভাবে গৃহবন্দি রেখে উন্নত চিকিৎসার সুযোগ না দিয়ে মৃত্যুমুখে ঠেলে দেয়া হয়েছিল ঠিক তেমনিভাবে পাসপোর্ট জব্দ রেখে সূক্ষ্যভাবে আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী হাফীজাহুল্লাহুকেও মৃত্যুমুখে ঠেলে দেয়া হচ্ছে ৷ তাই এখনি সময় যে কোনমূল্যে পাসপোর্ট ফেরৎ নিয়ে দেশের বাইরে আল্লামা বাবুনগরীর উন্নত চিকিৎসা নিশ্চিত করা ৷

লেখক:  জুনাইদ আহমদ (নেত্রকোণা), শিক্ষার্থী, দারুল উলুম হাটহাজারী

এই সংবাদটি 1,075 বার পড়া হয়েছে

বিশ্বের প্রভাবশালী ১শ নারীর তালিকা প্রকাশ করেছে ফোর্বস ম্যাগজিন। এই তালিকার শীর্ষ একশ নারীর মধ্যে প্রথম অবস্থানে রয়েছেন জার্মানির চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেল। তালিকার ২৯তম অবস্থানে রয়েছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।  বাংলাদেশের ইতিহাসে দীর্ঘকালীন সময় ধরে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা শেখ হাসিনা। তিনি চতুর্থবারের মতো জয়ী হয়ে টানা তিনবার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। গত নির্বাচনে তার দল ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সংসদের ৩শ আসনের মধ্যে ২৮৮টিতেই জয় লাভ করে।  ১৯৮১ সাল থেকে টানা প্রায় ৩৮ বছর ধরে বাংলাদেশের বৃহত্তম রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগের দলীয় প্রধানের দায়িত্ব পালন করছেন শেখ হাসিনা। ১৯৯৬ সালের ২৩ জুন প্রথমবার দেশের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেন তিনি। এরপর থেকেই শক্ত হাতে দলকে নিয়ন্ত্রণ করছেন শেখ হাসিনা। দেশের খাদ্য নিরাপত্তা, শিক্ষার উন্নয়ন এবং স্বাস্থ্যসেবার প্রতি জোর দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী।  ফোর্বসের তালিকায় প্রভাবশালী শীর্ষ ১০ নারীর তালিকায় আছেন অ্যাঙ্গেলা মেরকেল, ক্রিস্টিনে লেগারদে, নেন্সি পেলোসি, আরসুলা ভন দের লেয়েন, মেরি বারা, মেলিন্ডা গেটস, আবিগেইল জনসন, আনা পেট্রিসিয়া বোটিন, গিনি রোমেটি এবং মেরিলিন হিউসন। ২০১৮ সালে ফোর্বসের প্রভাবশালী ১শ নারীর তালিকায় শেখ হাসিনার অবস্থান ছিল ২৬তম।
বিশ্বের প্রভাবশালী ১শ নারীর তালিকা প্রকাশ করেছে ফোর্বস ম্যাগজিন। এই তালিকার শীর্ষ একশ নারীর মধ্যে প্রথম অবস্থানে রয়েছেন জার্মানির চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেল। তালিকার ২৯তম অবস্থানে রয়েছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বাংলাদেশের ইতিহাসে দীর্ঘকালীন সময় ধরে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা শেখ হাসিনা। তিনি চতুর্থবারের মতো জয়ী হয়ে টানা তিনবার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। গত নির্বাচনে তার দল ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সংসদের ৩শ আসনের মধ্যে ২৮৮টিতেই জয় লাভ করে। ১৯৮১ সাল থেকে টানা প্রায় ৩৮ বছর ধরে বাংলাদেশের বৃহত্তম রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগের দলীয় প্রধানের দায়িত্ব পালন করছেন শেখ হাসিনা। ১৯৯৬ সালের ২৩ জুন প্রথমবার দেশের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেন তিনি। এরপর থেকেই শক্ত হাতে দলকে নিয়ন্ত্রণ করছেন শেখ হাসিনা। দেশের খাদ্য নিরাপত্তা, শিক্ষার উন্নয়ন এবং স্বাস্থ্যসেবার প্রতি জোর দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী। ফোর্বসের তালিকায় প্রভাবশালী শীর্ষ ১০ নারীর তালিকায় আছেন অ্যাঙ্গেলা মেরকেল, ক্রিস্টিনে লেগারদে, নেন্সি পেলোসি, আরসুলা ভন দের লেয়েন, মেরি বারা, মেলিন্ডা গেটস, আবিগেইল জনসন, আনা পেট্রিসিয়া বোটিন, গিনি রোমেটি এবং মেরিলিন হিউসন। ২০১৮ সালে ফোর্বসের প্রভাবশালী ১শ নারীর তালিকায় শেখ হাসিনার অবস্থান ছিল ২৬তম।
WP2FB Auto Publish Powered By : XYZScripts.com