মহানবীর অবমননার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে কার্পণ্য করলে ভারতকে চরম মাশুল দিতে হবে। -জমিয়ত

প্রকাশিত: ৮:১৯ অপরাহ্ণ, জুন ১০, ২০২২

মহানবীর অবমননার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে কার্পণ্য করলে ভারতকে চরম মাশুল দিতে হবে। -জমিয়ত

সিলেট রিপোর্ট:

জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের নেতৃবৃন্দ বলেছেন: ভারতের বিজেপি সরকার ভারতে উগ্র হিন্দুত্ববাদ প্রতিষ্ঠা করতে অবিরত নানামুখী চক্রান্ত চালিয়ে যাচ্ছে। কোথাও মুসলিম হত্যা,কোথাও মসজিদ ধ্বংশ, কোথাও জয়শ্রীরাম শ্লোগান দিয়ে মুসমানদের উপর নির্যাতন করা,কোথাও শরয়ী পর্দা হিজাব নিষিদ্ধ করা,কখনো কোরআন অবমাননা করা,কখনো মানবতার মুক্তির দিশারী হযরত মুহাম্মাদ সা.এর ব্যাপারে নুপুর শর্মা ও নবীন কুমার জিন্দালদের দ্বারা ধৃষ্টতাপূর্ণ মন্তব্য করানো। এসবই হচ্ছে সম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করে উগ্র হিন্দুত্ববাদ প্রতিষ্ঠা করতে বিজেপির গভীর ষড়যন্ত্র। এমন ষড়যন্ত্রের পরিণাম কখনোই শুভ হবেনা।
মুসলিম বিশ্ব এবার জেগে উঠেছে, প্রতিবাদের আগুন জ্বলছে পৃথীবীর সর্বত্রই।মহানবী সাঃ এর ইজ্জত রক্ষায় মুসলমানেরা জীবন বিলিয়ে দিতেও কার্পণ্য করেনা।এটাই চিরন্তন বাস্তবতা।জমিয়ত নেতৃবৃন্দ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে স্পষ্ট ভাষায় আরো বলেছেন মহনবীর অবমাননার অপরাধে
কুলাঙ্গার নুপুর শর্মা ও নবীন কুমার জিন্দালের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে কার্পণ্য করলে ভারতকে চরম মাশুল দিতে হবে।
মানবকুলের মুক্তিদূত হযরত মুহাম্মাদ সা.এর ব্যাপারে নুপুর শর্মা ও নবীন কুমার জিন্দালদের ধৃষ্ঠতাপূর্ণ মন্তব্যের প্রতিবাদে আজ ১০ জুন শুক্রবার বাদ আসর বাইতুল মোকাররম উত্তর গেইটে জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের বিক্ষোভ মিছিলপূর্ব সমাবেশে জমিয়ত নেতৃবৃন্দ এ সব কথা বলেছেন।
জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের সিনিয়র সহ- সভাপতি মাওলানা উবায়দুল্লাহ ফারুকের সভাপতিত্বে ও প্রচার সম্পাদক মাওলানা জয়নুল আবেদীনের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ মিছিলপূর্ব উক্ত সমাবেশে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য রাখেন দলের সহ-সভাপতি মাওলানা আব্দুর রব ইউসুফী, সহ-সভাপতি মাওলানা আব্দুল কুদ্দুস কাসেমী,মহাসচিব মাওলানা মঞ্জুরুল ইসলাম আফেন্দী,অফিস সম্পাদক মাওলানা আব্দুল গাফফার ছয়ঘরী,যুব বিষয়ক সম্পাদক মাওলানা বশিরুল হাসান খাদিমানী, ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক মাওলানা মাহবুবুল আলম,পাঠাগার সম্পাদক মাওলানা হেদায়েতুল ইসলাম,ছাত্র জমিয়ত বাংলাদেশের সভাপতি এখলাছুর রহমান রিয়াদ ও সাধারণ সম্পাদক হুজায়ফা উমর প্রমুখ।
সভাপতির বক্তব্যে শাইখুল হাদীস মাওলানা উবায়দুল্লাহ ফারুক বলেছেন পৃথিবীতে সকল ধর্মাবলম্বী ছিল কিন্তু মনবতা, শিক্ষা ও সভ্যতা কিছুই ছিলনা। হযরত মুহাম্মাদ সা.ই মানুষকে সর্বপ্রথম মানবীয় এসব গুণাবলীর শিক্ষা দিয়েছেন।সুতরাং ভারতকে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টকারী আচরণ বন্ধ করতে হবে। নতুবা সারা দুনিয়া এৃক সময় ভারতকে বয়কট করার ডাক দিতে বাধ্য হবে।
শাইখুল হাদীস মাওলানা আব্দুর রব ইউসুফী ওআইসিকে একটি আদালত বসিয়ে বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মাদ সা. সম্পর্কে অবমাননাকর মন্তব্য করার দায়ে ভারতের নুপুর শর্মা ও নবীন কুমার জিন্দালের বিরুদ্ধে শরিয়া মোতাবেক একটি রায় ঘোষণার আহবান জানিয়ে বলেছেন এই রায় গোটা মুসলিমবিশ্ব অনুসরণ করবে।
জমিয়ত মহাসচিব মাওলানা মঞ্জুরুল ইসলাম আফেন্দী বলেছেন পবিত্র কুরআনের সূরা আহজাবের ৬নং আয়াতে মহান আল্লাহ ঘোষণা দিয়েছেন “নবী মুহাম্মাদ সা. মুমিনদের কাছে তাদের নিজেদের চেয়েও অধিক ঘনিষ্ঠ এবং তাঁর স্ত্রীগণ মু’মিনদের মা” সুতরাং মানবকুলের শান্তি ও মুক্তিদূত হযরত মুহাম্মাদ সা.এর ইজ্জতে আঘাত করা হলে মু’মিনগণ প্রতিবাদ না করে থাকতে পারেনা। তিনি আরো বলেছেন অবশ্যই সরকারকে ভারতীয় রাষ্ট্রদূতকে তলব করে এবং জাতীয় সংসদের চলমান বাজেট অধিবশনে নিন্দা প্রস্তাব পাশ করে রাষ্ট্রীয় ভাবে এই ধৃষ্ঠতার প্রতিবাদ করতে হবে।

এই সংবাদটি 16 বার পঠিত হয়েছে

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com