শনিবার, ১৭ জুন ২০১৭ ১২:০৬ ঘণ্টা

জামালগঞ্জে মতবিনিময় সভায় জেলা প্রশাসক ‘মুক্তিযোদ্ধাদের সুদ মওকুফ’

Share Button

জামালগঞ্জে মতবিনিময় সভায় জেলা প্রশাসক ‘মুক্তিযোদ্ধাদের  সুদ মওকুফ’

এম আল আমিন, জামালগঞ্জ: সুনামগঞ্জ জেলার নবাগত জেলা প্রশাসক মো: ছাবিরুল ইসলাম বলেছেন, জনগণের ট্যাক্সের টাকায় আমাদের বেতন তাই জনগণের সেবা না করতে পারলে চাকরী ছেড়ে চলে যাওয়া উচিত। মুষ্টিমেয় কিছু সংখ্যক দূনীতিবাজ কর্মকর্তাদের কারণে সুনামগঞ্জের কৃষকের একমাত্র ফসল তলিযে গেছে। কৃষি পুনঃবাসনের জন্য মাননীয় কৃষি মন্ত্রীর সাথে দেখা করে কৃষকেদেরকে সহযোগীতার আওতায় আনার জন্য বলেছি। এনজিওদেরকে ঋণ স্থগিত নয় মওকুফ করার জন্য চিঠি দিয়েছি। সুনামগঞ্জ জেলার সকল ছাত্র-ছাত্রীদের উপবৃত্তির আওতায় আনার জন্য উর্ধ্বত কর্তৃপক্ষের নিকট চিঠি দিয়েছি। বীরমুক্তিযোদ্ধাদের এবছরের ঋণের সুদ মওকুফ করার জন্য প্রতিটি ব্যাংকে চিঠি দিয়েছি। বীরমুক্তিযোদ্ধা, বয়ষ্ক, বিধবা, প্রতিবন্ধী সহ সকল সম্মানী ভাতা ওয়েব সাইডে আনার জন্য প্রতিটি উপজেলায় নিদের্শ দেওয়া হয়েছে। প্রত্যেকেই তাদের নিজ নিজ দায়িত্ব পালনে সচেষ্ট থাকলে এদেশ এক দিন বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলায় রূপান্তরিত হবে। জেলার ৩ লক্ষ ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের মধ্যে ১ লক্ষ ৫০ হাজার পরিবারকে ভিজিএফ এর আওতায় আনা হয়েছে। বাকীদেরকে ভিজিএফ এর আওতায় আনার জন্য উর্ধ্বত কতৃপক্ষের নিকট আবেদন করেছি। আশা করি আগামী জুলাইয়ের মধ্যে সবাইকে ভিজিএফ এর আওতবায় আনা সম্ভব্য হবে। জেলার সকল ছাত্র-ছাত্রীদের বেতন মওকুফের জন্য শিক্ষা মন্ত্রনালয়ে সুপারিশ করেন। টিআর, কাবিকা, ভিজিএফ, ভিজিডি, সচ্ছতার সহিত বন্টনের নিদের্শ দেন। সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে একটি ফেইসবুক অভিযোগ সেল খোলা হয়েছে। প্রত্যেকেই তাদের স্ব স্ব বক্তব্য, অভিযোগ, পরার্মশ ফেইসবুকের মাধ্যমে অভিযোগ সেলে পাঠাতে পারবেন।
শুক্রবার বিকালে জামালগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রসুন কুমার চক্রবর্তীর সভাপতিত্বে উপজেলা পরিষদ হল রুমে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে তিনি এসব কথা বলেন। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শামছুল আলম তালুকদার ঝুনু মিয়া, ভাইস চেয়ারম্যান মুহা. রশিদ আহমদ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হাফিজা আক্তার দিপু। অন্যান্যের মাঝে উপস্থিত ছিলেন, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ও সুনামগঞ্জ জেলার কৃষকলীগের আহ্বায়ক এড. আসাদ উল্লাহ সরকার, উপজেলা আ’লীগ সভাপতি আলহাজ¦ মোহাম্মদ আলী, জামালগঞ্জ ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ মো. হাবিবুর রহমান, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা ড. সাফায়েত আহমদ সিদ্দিকী, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মনিসর চৌধুরী, জামালগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) নির্মল দেবনাথ, ভেটেনারী সার্জন ডা. মনিরুল ইসলাম, ফেনারবাক ইউপি চেয়ারম্যান করুণা সিন্ধু তালুকদার, ভীমখালী ইউপি চেয়ারম্যান মো. দুলাল মিয়া, জামালগঞ্জ সদর ইউপি চেয়ারম্যান সাজ্জাদ মাহমুদ তালুকদার, জামালগঞ্জ উত্তর ইউপি চেয়ারম্যান মো. রজব আলী, সাচনা বাজার ইউপির প্যানেল চেয়ারম্যান মো. আতাউর রহমান, মুক্তিযোদ্ধা ডেপুটি কমান্ডার শ্রীকান্ত তালুকদার, খাদ্য গুদাম কর্মকর্তা অসীম কুমার তালুকদার, জামালগঞ্জ মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. লুৎফুর রহমান, বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বিধান ভূষন চক্রবর্তী, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের আহ্বায়ক কাজী আশরাফুজ্জামান, সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি মো. ওয়ালী উল্লাহ সরকার, প্রেসক্লাব সভাপতি অঞ্জন পুরকায়স্থ, সাধারণ সম্পাদক তৌহিদ চৌধূরী প্রদীপ সহ স্ব স্ব প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারী, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি, মুক্তিযোদ্ধা, ইউপি সচিব ও সকল সাংবাদিকগণ উপস্থিত ছিলেন। উন্মোক্ত আলোচনায় বক্তব্য রাখেন, উপজেলা চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা, উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা, উপজেলা আ’লীগ সভাপতি, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার, ফেনারবাক ইউপি চেয়ারম্যান, জামালগঞ্জ মডেল উচ্চ বিদ্যারয়ের প্রধান শিক্ষক, বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক, সাংবাদিক ফোরাম সভাপতি, প্রেসক্লাব সভাপতি, জামালগঞ্জ উত্তর ইউপি চেয়ারম্যান প্রমূখ। এছাড়াও তিনি জামালগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের মাঝে ভিজিএফ বিতরণ, দুটি দারিদ্র বিমোচন প্রকল্প পরিদর্শন, দুটি উন্নয়ন প্রকল্প পরিদর্শন করেন। মতবিনিময় সভায় উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের পক্ষ থেকে বীরমুক্তিযোদ্ধা সন্তান জেলা প্রশাসক মো: সাবিরুল ইসলামকে ফুলের তোরা দিয়ে বরণ করে নেওয়া হয়।

এই সংবাদটি 1,044 বার পড়া হয়েছে