বুধবার, ১০ জানু ২০১৮ ০৮:০১ ঘণ্টা

কাকরাইল মসজিদে মাওলানা সাদ !

Share Button

কাকরাইল মসজিদে মাওলানা সাদ !

ডেস্ক রিপোর্ট: বিশ্ব ইজতেমায় দিল্লির মাওলানা সাদ কান্ধলভীর আগমন ঠেকাতে বিমানবন্দর এলাকায় সকাল থেকে বিক্ষোভ করছেন তাবলিগ জামাতের একটি অংশ। আগামী শুক্রবার থেকে শুরু হওয়া বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্বে মাওলানা সাদ যেন অংশ নিতে না পারেন সেজন্য ওই পক্ষটি বিমানবন্দরের সামনে বিক্ষোভ করছে। এছাড়া বিক্ষোভ হচ্ছে ঢাকার বেশ কয়েকটি মাদ্রাসাতেও।

বিশ্ব ইজতেমা ময়দানে তাবলিগের দিল্লি মারকাজের শীর্ষ এই মুরব্বি যেন প্রবেশ করতে না পারেন সেজন্য বিভিন্ন গাড়িতে তল্লাশি চালাচ্ছেন বিক্ষোভকারীরা।

সকাল থেকেই তাবলিগের এই অংশটি মাওলানা সাদের খোঁজে বিমানবন্দর থেকে সিভিল এভিয়েশন হেড কোয়াটার্স গেট দিয়ে বের হওয়া সকল যানবাহনে তল্লাশি চালাচ্ছেন। তাদের তল্লাশি থেকে বাদ যাচ্ছে না অ্যাম্বুলেন্সও।

সর্বশেষ প্রাপ্ত তথ্যে জানাগেছে, মাওলানা সাদ কান্ধলভীকে কাকরাইল মসজিদের তাবলিগ জামাতের মারকাজে নেয়া হয়েছে। কওমীপন্থী আলেম ও তাবলিগ জামাতের একাংশের বিরোধীতায় তিনি হজরত শাহজালাল (রহ.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে দীর্ঘসময় অবরুদ্ধ ছিলেন। পরে পুলিশ পাহারায় আজ বুধবার বিকালে তাকে কাকরাইল আনা হয়। এ বিষয়ে পুলিশের রমনা জোনের ডিসি মারুফ হোসেন সরদার জানান, মাওলানা মোহাম্মদ সাদকে বিমানবন্দর থেকে কাকরাইল মসজিদে আনা হয়েছে। এ মুহূর্তে তাকে ইজতেমা মাঠে নেয়া হবে না। এর আগে বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে থাই এয়ারওয়েজের একটি ফ্লাইটে ব্যাংকক থেকে বিমানবন্দরে পৌঁছান মাওলানা মোহাম্মদ সাদ কান্ধলভি।

উল্লেখ্য, তাবলিগের দিল্লি মারকাজের শীর্ষ মুরব্বি সাদের সঙ্গে তাবলিগের শীর্ষ ব্যক্তিদের অনেকদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। সাদের কিছু বক্তব্যের জেরে ভারত-বাংলাদেশের আলেমদের একটি শ্রেণি তার বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে। দেওবন্দ মাদ্রাসা থেকেও তার বিরুদ্ধে ফতোয়া এসেছে।

সেই সূত্র ধরে ইজতেমায় মাওলানা সাদের  অংশগ্রহণকে নিয়ে কাকরাইল শূরাদের মাঝেও মতবিরোধ দেখা দেয়। ওলামায়ে কেরামও মাওলানা সাদের ইজতেমায় অংশগ্রহণ না করার পক্ষেই সরকারকে প্রস্তাব করেছেন। এ ব্যাপারে সরকারের সঙ্গে আলেম-ওলামা এবং কাকরাইলের মুরব্বিদের দফায় দফায় বৈঠক হলেও কোনো সুরাহা হয়নি।

এমন অবস্থার মধ্যেই বুধবার বেলা পৌনে একটার দিকে দিল্লি থেকে একটি ফ্লাইটে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছান মাওলানা সাদ। বিমানবন্দরে পৌঁছানোর পর তার সঙ্গে দেখা করেছেন আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তারা। তারা মাওলানা সাদকে জানিয়েছেন, পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

এদিকে রাস্তায় অবস্থান করে বিক্ষোভ করায় বিমানবন্দরের সামনের সড়ক দিয়ে সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ রয়েছে। বিমানবন্দর থেকে উত্তরা পর্যন্ত সড়কে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।

বিমানবন্দর থাকার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নূরে আজম মিয়া বলেন,‘আমরা বিক্ষোভকারীদের রাস্তা থেকে সরানোর চেষ্টা করছি।’

এই সংবাদটি 1,055 বার পড়া হয়েছে

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com