বৃটেনের হোয়াইটচ্যাপেল ওয়ার্ড নির্বাচনে সিলেটের শাফি

প্রকাশিত: ১২:০৫ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১২, ২০১৬

বৃটেনের হোয়াইটচ্যাপেল ওয়ার্ড নির্বাচনে সিলেটের শাফি

লন্ডন থেকে-সাজ্জাদুর রহমান আনসারী : আগামী ১ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের হোয়াইটচ্যাপেল ওয়ার্ডে অনুষ্ঠিতব্য উপ-নির্বাচনে ছয় প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। ৪ নভেম্বর কাউন্সিলের রিটানিং অফিসার উইল টাকলি প্রার্থীদের চুড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করেছেন। প্রার্থীরা হচ্ছেন- শাফি আহমদ (ইন্ডিপেন্ডডেন্ট), ভিক্টোরিয়া অবাজি (লেবার), উইল ফ্লিচার (কনজার্ভেটিভ), টমিসলাভ অ্যানজিলিক (লিবডেম), মার্টিন স্মিথ (ইউকিপ) ও জেমস উইলসন (গ্রীন পার্টি) । বাঙালি অধ্যুষিত এই ওয়ার্ডে শাফি আহমদই একমাত্র বৃটিশ-বাঙালি প্রার্থী। তিনি হোয়াইটচ্যাপেল এলাকার বিভিন্ন কমিউনিটি সংগঠনের সাথে ওতোপ্রতোভাবে জড়িত। প্রায় অর্ধযুগ ধরে স্থানীয় হ্যারি গজলিং প্রাইমারী স্কুলের প্যারেন্টস গভর্ণর হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।
তাছাড়া স্থানীয় মাদানী গার্লস স্কুল ম্যানেজমেন্ট কমিটির জেনারেল সেক্রেটারি এবং কাউন্সিল মস্ক টাওয়ার হ্যামলেটসের এসিসটেন্ট সেক্রেটারির দায়িত্বে রয়েছেন। হোয়াইটচ্যাপেলের বার্নার স্ট্রিটের স্থায়ী বাসিন্দা শাফি আহমদের পৈত্রিক নিবাস সিলেটের বিয়ানীবাজার উপজেলার কুড়ার বাজার ইউনিয়নের দেউলগ্রামে। তাঁর পিতা কমিউনিটি নেতা শামস উদ্দিন আহমদ বৃটেনে প্রথমদিকের একজন বৃটিশ-বাঙালি ড্রাইভিং ইন্সট্রাকটর ।
সংবাদপত্রে প্রদত্ত এক বিজ্ঞপ্তিতে শাফি আহমদ এলাকাবাসীর আন্তরিক সমর্থন ও সহযোগিতা কামনা করে তাঁর লক্ষ্য-উদ্দেশ্য তুলে ধরেন। তিনি বলেন, কাউন্সিলার নির্বাচিত হলে এলাকায় অসামাজিক কার্যকলাপ প্রতিরোধ, অপরাধ দমন, মাদক নির্মূল, সিসি ক্যামেরা সম্প্রসারণ, গ্রীন স্পেসের উন্নয়নসহ সর্বোপরি একটি পরিচ্ছন্ন ওয়ার্ড গড়তে নিরলসভাবে কাজ করে যাবেন। তিনি বলেন, ফান্ডিং কাটের কারণে স্থানীয় কমিউনিটি সংগঠনগুলো বন্ধ হয়ে পড়ছে। এই সংগঠনগুলোকে টিকিয়ে রাখতে কাউন্সিলের সাথে পার্টনারশীপের ভিত্তিতে কাজ করবেন। শাফি আহমদ বলেন, নির্বাচিত হলে হোয়াটচ্যাপেলে টাউন হল স্থানান্তরের পর স্থানীয় মানুষের জন্য চাকরি ও ব্যবসার সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধি এবং ন্যায্য অধিকার আদায়ের লক্ষ্যে একই গ্রুপের অপর দুই কাউন্সিলার আবুল আসাদ ও আমিনুর খান-এর সঙ্গে ঐক্যভাবে কাজ করবেন। শাফি আহমদ বলেন, একজন স্কুল গভর্ণর হিসেবে আমি টাওয়ার হ্যামলেটসের স্কুলগুলোতে ফ্রি স্কুল মিল চালু রাখার প্রয়োজনীয়তা উপলব্ধি করতে পারি। তাই সবসময়ই স্কুল মিল চালু রাখার পক্ষে ছিলাম।
কাউন্সিলার নির্বাচিত হলে ফ্রি স্কুল মিলসহ ফ্রি এলডারলী হোম কেয়ার সার্ভিস চালু রাখতে লবিং চালিয়ে যাবো। উল্লেখ্য, এই ওয়ার্ডের অন্যতম কাউন্সিলার শাহেদ আলী আদালতের রায়ে দোষী সাব্যস্থ হওয়ায় তাঁর পদটি শুন্য ঘোষণা করা হয়। উক্ত শুন্য পদে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। ওয়ার্ডের অপর দুই কাউন্সিলার হচ্ছেন কাউন্সিলার আবুল আসাদ ও কাউন্সিলার আমিনুর খান। নির্বাচনে ইন্ডিপেন্ডডেন্ট প্রার্থী শাফি আহমদ ও লেবার পার্টির প্রার্থী ভিক্টোরিয়া অবাজির মধ্যে মূল লড়াই হবে।

এই সংবাদটি 176 বার পঠিত হয়েছে

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com