রবিবার, ১৩ অক্টো ২০১৯ ১০:১০ ঘণ্টা

ভর্তি পরীক্ষার জন্য আন্দোলন শিথিল

Share Button

ভর্তি পরীক্ষার জন্য আন্দোলন শিথিল

ডেস্করিপোর্ট:বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডের জের ধরে দেয়া শিক্ষার্থীদের পাঁচটি দাবি পূরণের
বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে বুয়েট প্রশাসন। বুয়েট কর্তৃপক্ষের এ সিদ্ধান্তের পর আজ এবং আগামীকাল এ দুই দিনের জন্য আন্দোলন শিথিল করেছেন শিক্ষার্থীরা। বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন শিক্ষা বর্ষে ভর্তি পরীক্ষা নির্বিঘ্নে সম্পন্ন করার সুযোগ দিতে আন্দোলন শিথিল করেন শিক্ষার্থীরা। আগামীকাল বুয়েটের ভর্তি পরীক্ষা। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ড. সাইফুল ইসলাম শুক্রবার বুয়েট অডিটরিয়ামে অনুরোধ করেন ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের কথা বিবেচনা করে সঠিক সময়ে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবার অনুরোধ জানান। এরই প্রেক্ষিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা স্বল্প সময়ে বাস্তবায়ন সম্ভব এমন ৫ দফা দাবি পেশ করেন। এই ৫ দফা দাবির প্রেক্ষিতে গতকাল নোটিশ প্রকাশ করে বুয়েট প্রশাসন। দাবির প্রেক্ষিতে একদিন পরেই প্রশাসন নোটিশ প্রকাশ ও সেই অনুযায়ী কার্যক্রম পরিচালনার কারণেই ২দিনের জন্য আন্দোলন শিথিল করেন তারা।

আবরার হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের বহিষ্কারের বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের নোটিশে বলা হয়, মামলার সকল আসামিকে সাময়িক বহিষ্কার করা হলো। পরবর্তীতে শৃঙ্খলা কমিটি ও সিন্ডিকেটের সিদ্ধান্তের আলোকে তাদেরকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হবে। পরবর্তীতে যদি এই মামলায় আরও কেউ সাজাপ্রাপ্ত হয় তাহলে তাকেও স্থায়ী বহিষ্কার করা হবে।

পৃথক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, আবরার ফাহাদ হত্যা মামলা চলাকালীন সমস্ত খরচ বুয়েট প্রশাসন বহন করবে এবং আবরার ফাহাদের পরিবারকে প্রয়োজনীয় অর্থ সহায়তা দেবে।
ছাত্ররাজনীতি বন্ধ সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, যারা অবৈধভাবে বুয়েটের আবাসিক হলের সিট দখল করে আছে তাদের দ্রুতই বের করে দেয়া হবে এবং হলে ছাত্রসংগঠনের অফিস সিলগালা করা হবে। এজন্য ছাত্রকল্যাণ উপদেষ্টাকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ১২ই অক্টোবর থেকেই এ কার্যক্রম শুরু হয়েছে। কেই বাধা দেয়ার চেষ্টা করলে তার বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করে হবে। এছাড়া, পরবর্তীতে কেউ ছাত্র নির্যাতন করলে তাকেও শাস্তি প্রদান করা হবে।
অন্য বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, শিক্ষার্থীদের জন্য একটি ওয়েবসাইট চালু করবে বুয়েট প্রশাসন। যেখানে তারা নির্যাতনের অভিযোগ জানাতে পারবে। আর, প্রত্যেক হলের সব ফ্লোরের দুই পাশে সিসি ক্যামেরা যুক্ত করা হবে।

বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা বলেন, প্রধানমন্ত্রী ও ভিসি স্যারকে ধন্যবাদ জানাতে চাই। প্রধানমন্ত্রীর স্বদিচ্ছার জন্যই এত দ্রুত কাজগুলো এগিয়ে যাচ্ছে। আর ভিসি স্যার শুক্রবার কয়েক ঘণ্টা সময় নিয়ে আমাদের কথাগুলো শুনেছেন। আমাদের কথা ছিলো দাবি বাস্তবায়ন হলে আমরা মাঠ ছাড়বো। যেহেতু এখানে ১২ হাজার ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের কথা চলে এসেছে। তাদের ভোগান্তির কথা ভেবে এবং যেহেতু দাবি বাস্তবায়ন শুরু হয়ে গেছে সেহেতু আমরা স্যারদের ওপর আস্থা রাখছি। গত ৩ বছর বিভিন্ন দাবিতে আন্দোলন হয়েছে। এই সময় প্রশাসনের কাছে বিভিন্ন আশ্বাস পেয়েছি। কিন্তু বাস্তবায়ন দেখিনি। যার কারণে বিশ্বাসহীনতা গড়ে উঠেছে। স্যারদের কাছে অনুরোধ দয়া করে এবারও আমাদের আশ্বাসে ফিরিয়ে দেবেন না। আমরা আপনাদের বিশ্বাস করি। বিশ্বাস করতে চাই। ১৩ এবং ১৪ই অক্টোবর বুয়েটের ভর্তি পরীক্ষা উপলক্ষে আমরা আমাদের আন্দোলন শিথিল করছি। আমরা অঙ্গীকার করছি ভর্তিচ্ছু ১২ হাজার পরীক্ষার্থী এবং তাদের সঙ্গে আসা অভিভাবকদের সহযোগিতা করার। আমাদের আন্দোলন ১০ দফা দাবি বাস্তবায়নের। আমার আমাদের দাবি তুলে নিচ্ছি না, শুধু ২ দিনের জন্য শিথিল করছি।

এই সংবাদটি 1,005 বার পড়া হয়েছে

WP2FB Auto Publish Powered By : XYZScripts.com