বৃহস্পতিবার, ৩১ অক্টো ২০১৯ ১১:১০ ঘণ্টা

জামায়াত কওমি ঐক্য প্রসঙ্গে

Share Button

জামায়াত কওমি ঐক্য প্রসঙ্গে

সাইমুম সাদী:

পাকিস্তানের মজলিসে মুত্তাহিদা আমেলা তথা ইসলামী ঐক্য সম্পর্কে বৃটেনের বিশিষ্ট মিডিয়া ব্যাক্তিত্ব মাওলানা Abdus Salam Azadi তার একটি স্মৃতিচারণে বলেন –

‘এই ঐক্যের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখেন কিংবদন্তি তুল্য জামাআতে ইসলামির এক সময়ের আমীর কাযি হুসাইন (র)।

লন্ডনে এলে তার কাছে শুনেছিলাম এই ঐক্য গড়ার কাহিনি। তিনি মাজলিসে মুত্তাহিদা আমেলা গড়ার উদ্যোগের প্রাথমিক পদক্ষেপ নিতে যেয়ে নিজ দল জামাআতে ইসলামির পক্ষ থেকেও বিরোধিতার শিকার হয়েছিলেন।

তিনি প্রথমেই যান ফযলুর রহমান সাহেবের কাছে। জানতে চান ঐক্যের পেছনে তার দলের বাঁধা কোনটা?

মাওলানা ফজলুর রহমান তখন মাওলানা মাওদূদীর খেলাফাত মুলুকিয়াত সহ কয়েকটা বই এর দিকে আঙুল তুলেন। এগুলো নিয়ে ট্রাডিশনাল ধারার আলেমদের আপত্তি রয়েছে।

কাযি হুসাইন ওয়াদা করে আসেন তিনি ঐ ৩/৪টা বই জামাআতের সিলেবাসে রাখবেন না। ঠিক অনুরুপ ই হয় ব্রেলভি ও আহলে হাদীস দের ক্ষেত্রে।

কাজি হুসাইন সাহেব ‘ইমান সে’ ঘোষণা দেন, ইসলামের ক্ষেত্রে আমাদের মানার উৎস নবী মুহাম্মাদ (সা), মওদূদী আমাদের আদর্শও নন ইমামও নন। এবং এজন্য শেষ পর্যন্ত ঐক্য হয়েছিলো।

আমাদের ৭দিনের একটা স্টাডী সার্কেল হয় লন্ডনে প্রফেসার গোলাম আযম (র) কে নিয়ে। শুরার ও কর্ম পরিষদ সদস্যদের নিয়ে তিনি তার জীবনের সমস্ত দর্শন গুলো আমাদের মাঝে আলোচনা করে গিয়েছেন।

একদিন খুব সরল পরিবেশে তাকে এই কথা বলে যখন বল্লাম, কাযি হুসাইন যেটা পারলেন পাকিস্তানে আপনারা বাংলাদেশে হাফেজ্জি হুজুরের (র) সাথে বসে সেটা কেন করতে পারেননি? এই সহজ কথাটা সেইদিন বলে দিলেই তো ঐক্য হয়ে যেতো।

আমাদের আশ্চর্যান্বিত করে প্রফেসর (র) সেদিন বলেছিলেন, আমি আজ স্বীকার করে নিচ্ছি, আমার ভাই কাযি হুসাইন ঐক্যের ব্যাপারে আমার চেয়ে উদার ছিলেন।

হাফেজ্জি হুজুর (র) যখন ফযলুর রহমান সাহেবের মত ঐ একই কথা বলেছিলেন, প্রফেসর সাহেব (র) তখন বলেছিলেন, “আচ্ছা, আমাদের পক্ষ থেকে দুইজন আলিম ও আপনাদের পক্ষ থেকে দুই জন আলিম নিয়ে একটা কমিটি করি। তারা ভুল বের করুন, আমরা ঐ গুলো সংশোধন করে নেবো”।

কিন্তু যে কোন আলিম এই রাজনৈতিক উত্তর শুনেই বুঝতে পারবেন এদের সাথে ঐক্যের কতটা সম্ভাবনা আছো, আর মাওলানা মওদূদী (র) নিয়ে জামাআত কত টুকু নির্মোহ।

ঐক্য হয়নি। প্রফেসর সাহেব (র) ঐ কথাটাই হয়ত বুঝিয়েছিলেন, কিন্তু তার পরে তো অনেক বছর হয়ে গিয়েছিলো, ঐক্যের সুতো ছিড়ে ছিড়ে আবারো তুলো হয়ে আকাশে উড়েছিলো।’

এতক্ষণে জামায়াতের এবং কওমির ভাইয়েরা হয়ত পরস্পরকে দোষারোপ করার জন্য যুক্তি খুজছেন। কমেন্ট কি করবেন চিন্তা করছেন। করতে থাকুন।

আগামী প্রজন্ম কাকে দোষ দিবে জানিনা। তবে কয়েকটা বইয়ের জন্য ঐক্য হয়নি কিছু ধর্মীয় মতবাদের জন্য রাজনৈতিক ভাবে গোলামীর জিঞ্জিরে আবদ্ধ হয়েছিল একটা জাতি এই ইতিহাস পড়ে নিশ্চয়ই তারা অবাক হবে।

এই সংবাদটি 2,283 বার পড়া হয়েছে

WP2FB Auto Publish Powered By : XYZScripts.com